বাড়ি কলকাতা
153
0

 চিকিৎসক রুদ্রজিৎ  রায়ের ভাবনায় মমতা   অশোক সেনগুপ্ত 
কলকাতা, ১২ এপ্রিল : তাঁর নয়া ছবি তৈরির প্রাথমিক প্রস্তুতি সেড়ে ফেলেছেন নবীন চিকিৎসক রুদ্রজিৎ রায়।লকডাউনের উত্তীর্ণ হলেই শুরু হবে শুটিং। লিলুয়া ডন বস্কো, কলকাতার সেভেন্থ ডে অ্যাটান্টিস্ট ও সেন্ট পলসের প্রাক্তনী রুদ্রজিৎ বেশ ক ‘বছর দিল্লির এইমসে ক্রিটিক্যাল কেয়ার ও কার্ডিওলজি বিভাগে কাজ করেছেন। কলকাতার এসএসকেএম এবং বিএম বিড়লাতেও ছিলেন। আপাতত জড়িত একটি বেসরকারি নামী হাসপাতালের সঙ্গে। তাঁর শর্ট ফিল্ম ‘চেজিং মাই ড্রিম’ ২২ টি আন্তর্জাতিক পুরস্কার পেয়েছে।রুদ্রজিতের নেশা ক্যামেরা নিয়ে বিভিন্ন শহর দেখা। আর লেখালেখি। এবার নিজের লেখা গল্পে রাহুল রয়ের স্ক্রিপ্টে শুরু করছেন ‘মমতা’ । মা ও ছেলের সম্পর্ক নিয়ে এই ছবিতে মুখ্য চরিত্র অর্থাৎ মায়ের ভূমিকায় থাকছেন মমতাশঙ্কর।কয়েক দশক ধরে অজস্র কৃতিত্বের সাক্ষর রেখেছেন এই শিল্পী. ছবিতে তাঁর ছেলে ঈশাণ মজুমদার। বাংলা ছবিতে প্রথাগত মা-ছেলের সম্পর্কের বাঁধা গতে হাঁটেনি এই গল্প। ছবিতে অভিনয় করছেন পারমিতা মুখার্জি, সুব্রত গুহ প্রমুখ। মিস ইন্ডিয়া-ওয়েস্ট বেঙ্গল সুস্মিতা রায় অভিনয় করেছেন একটি বিশেষ ভূমিকায়।ছবির চলচ্চিত্রায়ণে বিশেষ ভূমিকা থাকছে বালিগঞ্জ গভর্নমেন্টের প্রাক্তনী যাদবপুরের কলাবিভাগের মৈনাক শিকদারের। রুদ্রজিৎ জানান, বিদেশের চলচ্চিত্র প্রতিযোগিতার কথা মাথায় রেখেই তৈরি করবেন এটি। যাতে ২৫ মিনিটের এই ছোট ছবিকে বিস্তৃত করা যায়, তার অবকাশও রাখছেন।এর পাশাপাশি সাইন্স ফিকশন এর উপর শর্ট ফিল্ম তৈরির ভাবনা-চিন্তাও আছে। তার জন্য কিছু আন্তর্জাতিক সহযোগিতার প্রয়োজনের কথা তিনি জানান। শ্রীজিৎ মুখোপাধ্যায় থেকে সুজয় ঘোষ- অন্য পেশার প্রতিষ্ঠিত হয়েও বাংলা ছবির নির্দেশনায় মুন্সিয়ানা দেখিয়েছেন।ক’বছর আগে চিকিৎসক কমলেশ্বর মুখোপাধ্যায়ের পূর্ণ দৈর্ঘ্যের একাধিক ছবি তাক লাগিয়ে দিয়েছিল চলচ্চিত্রপ্রেমীদের।ওঁদের মতই রুদ্রজিৎ চলচ্চিত্রবোদ্ধাদের মনে গভীর দাগ রাখতে পারেন কিনা, সময়ই তা উত্তর দেবে। 

Loading...