বাড়ি কলকাতা ৭ মে – র আগে পুরভোট না হলে সাংবিধানিক সংকট দেখা দিতে...

৭ মে – র আগে পুরভোট না হলে সাংবিধানিক সংকট দেখা দিতে পারে : মেয়র

54
0


কলকাতা, ১৭ মার্চ : আগামী ৭ মে মেয়াদ শেষ হতে চলেছে কলকাতা পুরসভার বর্তমান বোর্ডের। তার আগে যদি নির্বাচন করানো না যায় তাহলে সে ক্ষেত্রে সাংবিধানিক সংকট দেখা দিতে পারে। মঙ্গলবার এমনটাই আশঙ্কা প্রকাশ করলেন পুরসভার মেয়র তথা পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। কারণ নিয়ম অনুযায়ী পুরো বোর্ডের মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে পুরসভা চালানোর দায়িত্ব দেওয়া হয় প্রশাসককে। কলকাতা পুরসভার ১৯৮০ আইন অনুযায়ী পুরসভার মাথায় প্রশাসক বসানো কোন নিয়ম নেই। একান্তই প্রশাসক বসাতে হয় সে ক্ষেত্রে বর্তমান পুরবোর্ডের অদক্ষতাকে প্রমাণ করতে হবে। এই পরিস্থিতিতে কি নিয়ম কার্যকরী হবে বা পুরো আইন পরিবর্তন করা হবে কিনা সে বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করবেন বলে জানিয়েছেন মেয়র ফিরহাদ হাকিম।গত ২০১৫ সালের ৮ মে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত পুরবোর্ডের প্রথম বৈঠক করেছিল। তাই স্বাভাবিক নিয়মেই তা ৭ মে শেষ হয়ে যাচ্ছে। কিন্তু করনা আতঙ্কের জেরে নির্বাচন কমিশন পিছিয়ে দিয়েছে পুরনির্বাচন। আগামী ৩০ মার্চ পুনরায় একটি পর্যালোচনা বৈঠক ডেকেছে নির্বাচন কমিশন। এই বৈঠকে করোনা সেই সময়ের পরিস্থিতি কেমন থাকে তা খতিয়ে দেখে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে। এই অবস্থায় যদি মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে পুরভোট না হয় তবে পুরসভা কে চালাবে সেই নিয়ে ইতিমধ্যে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। এই প্রসঙ্গে মেয়র জানান, প্রয়োজন হলে সে ক্ষেত্রে অর্ডিন্যান্স এনে নতুন আইন করতে হবে। এবং সেই আইনকে ছয় মাসের মধ্যে বিধানসভায় পাশ করাতে হবে।
 যদিও মেয়র উল্লেখ করেছেন, ওয়েস্ট বেঙ্গল মিউনিসিপ্যাল এবং কর্পোরেশন অ্যাক্ট অনুযায়ী, মেয়াদ শেষের পরেও রাজ্যের যদি কোনও পুরসভার নির্বাচন না হয়, তাহলে প্রশাসক বসিয়ে দেওয়ার নিয়ম রয়েছে। কিন্তু কলকাতা পুরসভা আইনের ক্ষেত্রে সেই নিয়ম নেই। তবে ভোট কবে হবে আদৌ মে মাসের আগে ভোট হবে কিনা তা পুরোটাই নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্ত বলে জানান মেয়র। আপাতত সবার চোখ ৩০ তারিখে নির্বাচন কমিশনের পর্যালোচনা বৈঠকে। সেই বৈঠকে সিদ্ধান্ত হবে সেই দিকেই তাকিয়ে কলকাতা পুরসভা। 

Loading...