বাড়ি বিনোদন “সমস্যা নাটকের প্রশিক্ষণ নিয়ে“— রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্ত

“সমস্যা নাটকের প্রশিক্ষণ নিয়ে“— রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্ত

103
0


অশোক সেনগুপ্ত

কলকাতা, ২৪ এপ্রিল :  ‘সাগিনা মাহাতো’, ‘গল্প হলেও সত্যি’, ‘হাটে বাজারে’, ‘এখনই‘, ‘পদি পিসির বর্মী বাক্স‘, ‘সিটি অফ জয়‘, ‘লাফিং বুদ্ধ‘, ‘পূর্ব পশ্চিম দক্ষিণ’ — সফল একগুচ্ছ বাংলা চলচ্চিত্রে অভিনয় করলেও রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্তর মূল পরিচয় নাট্যব্যক্তিত্ব হিসাবে। সেলুলয়েডের চেয়ও তাঁর বেশি স্বীকৃতি মঞ্চে। ছয় দশক পূর্ণ হল এই গাঁটছড়ার। সেই রুদ্রপ্রসাদবাবু লকডাউনে একেবারে ঘরবন্দি উত্তর কলকাতায় বিবেকানন্দ রোডে বাড়িতে। সঙ্গী বলতে স্ত্রী তথা প্রাক্তন অভিনেত্রী স্বাতীলেখা। কী করছেন? লকডাউনে অবশ্য ঘরকন্নার কাজে শামিল হতে হয়নি। প্রশ্নের উত্তরে ‘হিন্দুস্থান সমাচার’-কে জানালেন, “কাজের লোক বেশ ক‘জন। ওরা দর্জিপাড়ায় বা আশপাশে থেকে। তাই আসতে পাড়ছে।“
লকডাউনে দিনলিপির কতটা বদল হল? রুদ্রপ্রসাদবাবু জানালেন, “আগে উঠতাম সকাল সাড়ে সাতটা নাগাদ। তার পর প্রাত্যহিক নানা কাজের মাঝে খবরের কাগজ ও বই পড়া। রুটিনটা এখনও অব্যাহত। না, শরীরচর্চার অভ্যাসটা নেই। সমস্যায় পড়েছি নাটকের প্রশিক্ষণ হচ্ছে না বলে।“  কোথায় প্রশিক্ষণ হয়? রাজাবাজার সাইন্স কলেজের টপ ফ্লোরে, ফেডারেশন হলে। প্রতি সোম ও শনিবার হয় ছ‘মাসের এই প্রশিক্ষণ। প্রতি রবিবার হয় বাচ্চাদের শিবির। লকডাউনে বিঘ্নিত হচ্ছে। 
সময় কাটাচ্ছেন কিভাবে? নাট্যকার জানান, “বই পড়ছি। সম্প্রতি ভাল লাগলো ডোম মোরাসের ’আন্ডার সামথিং অফ এ ক্লাউড’ আল-বেরুনীর ‘ইন্ডিয়া’, সালমন্দ ফ্রিড মরিৎজের ‘ইট’স নট ইয়েট ডার্ক’, হারারের ‘হোমোডিউস‘, ‘ব্রিফ হিস্ট্রি অফ টুমরো‘ এবং ‘স্যাপিয়েন্স’।“ দুই প্রবীন আইনজীবী অশোক গঙ্গোপাধ্যায় এবং বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্যও এই লকডাউনে আমাকে বইটির কথা বলেছেন! এই প্রতিবেদকের মন্তব্যের জেরে বললেন, “হ্যাঁ। খুব ভাল বই। দ্বিতীয়বার পড়ছি।“
সংগীত নাটক একাডেমি পুরস্কারের পাশাপাশি ওই  রুদ্রপ্রসাদবাবু ওই প্রতিষ্ঠানের ফেলো। বিভিন্ন স্বীকৃতির মধ্যে আছে ‘বঙ্গবিভূষণ’, ইলাহাবাদের জাতীয় নাট্য উৎসবে প্রাপ্ত ‘অনুকূল সম্মান’ প্রভৃতি।  লকডাউন একটা অন্যরকম ভাবনা তৈরি করেছে সবার মনেই। এর প্রভাব কার ওপর কতখানি পড়বে, সময়ই তার উত্তর দেবে।

Loading...