বাড়ি ফিরে দেখা লকডাউনে মেলেনি গাড়ি, ট্রলি ভ্যানে চাপিয়ে চিকিৎসা করাতে নিয়ে যাওয়া হল আমতার...

লকডাউনে মেলেনি গাড়ি, ট্রলি ভ্যানে চাপিয়ে চিকিৎসা করাতে নিয়ে যাওয়া হল আমতার পৌঢ়াকে

98
0

কল্যাণ অধিকারী, হাওড়া
লকডাউন চলাকালীন মিলছে না চিকিৎসা কেন্দ্রে নিয়ে যাবার গাড়ি। টোটো নয়তো মারুতি ভাড়া করতে হচ্ছে। দ্বিগুণ ভাড়া দিয়ে পৌঁছাতে হচ্ছে। অনেকক্ষেত্রে টাকা দিয়েও নিয়ে যেতে চাইছে না গাড়িচালক। সমস্যায় পড়েছেন গ্রামীণ হাওড়ার চিকিৎসা করাতে যাওয়া সাধারণ মানুষ। 
বুধবার বেলা এগারোটা নাগাদ জয়পুর থানার অমরাগড়ি এলাকায় একটি ক্লিনিকে অসুস্থ পৌঢ়া কে আনতে কোন গাড়ি মেলেনি। পরিবারের লোকজনের কথায়, ৭০ বছরের পৌঢ়ার পায়ে চোট লাগে। একটাও মেলেনি টোটো। যদিও বা মিলল ৫কিমি যেতে-আসতে চারশো টাকা চাইলো। লকডাউন চলাকালীন কোনক্রমে সংসার চলছে। তার উপর পড়ে গিয়ে পায়ে চোট পেয়েছেন। বাধ্য হয়ে এলাকার একটি ট্রলি ভ্যানে করে নিয়ে আসা হয় অমরাগড়ি ফুটবল মাঠ লাগোয়া একটি প্যাথোলজি সেন্টারে। ওখানের চিকিৎসক এক্সরে করবার কথা জানান। রাস্তার ধারে শুইয়ে রাখা হয়। তারপর এক্সরে করিয়ে নিয়ে আসা হয়।আমতার পাত্র পোল এলাকার এক গর্ভবতী মহিলাকে উলুবেড়িয়া চিকিৎসকের কাছে দেখাতে নিয়ে যেতে সমস্যায় পড়ে পরিবারের লোকজন। এলাকায় গাড়ি না পেয়ে স্থানীয় ক্লাবের সদস্যদের দ্বারা একটি এম্বুলেন্স এর সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। কিন্তু তিনি জানান রোগী নিয়ে কলকাতায় যেতে হবে। পরে নিশ্চয় যানে চাপিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় উলুবেড়িয়া হাসপাতাল লাগোয়া একটি নার্সিংহোমে। আমতা হাসপাতাল থেকে উলুবেড়িয়া একটি বেসরকারি নার্সিংহোমে ভর্তি করতে ৬০০ টাকা গাড়ি ভাড়া দিতে হয়েছে এমনটা জানাচ্ছেন আরও এক পরিবার। ওঁদের কথায়, পড়ে গিয়ে বুকে চোট লাগে বছর তিরিশের যুবকের। উলুবেড়িয়া নার্সিংহোমে নিয়ে আসতে গাড়ি মিলছিল না। একটি গাড়ি রাজি হলেও আটশো টাকা চায়। পড়ে ৬০০ টাকায় রাজি হয়।লকডাউন চলাকালীন বিভিন্ন এলাকায় চিকিৎসার জন্য গাড়ির সমস্যায় কমবেশি সকলেই। স্বাস্থ্য দফতরের এক কর্তার কথায়, গ্রামীণ এলাকায় কোন মানুষ চিকিৎসার জন্য গাড়ি সমস্যায় পড়লে স্থানীয় বিডিও অথবা প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করলে গাড়ির ব্যবস্থা করা হবে। গ্রামীণ পুলিশের এক কর্তার কথায়, চিকিৎসার জন্য কোনভাবে সমস্যার সম্মুখীন হলে বাড়িতে স্বাস্থ্য কর্মীদের পাঠানো হবে। থানার গাড়িতেও নিয়ে এসে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে।

Loading...