বাড়ি কলকাতা রিপোর্টে সন্তোষ প্রকাশ করে অবশেষে মিলল গঙ্গাসাগর মেলার ছাড়পত্র

রিপোর্টে সন্তোষ প্রকাশ করে অবশেষে মিলল গঙ্গাসাগর মেলার ছাড়পত্র

24
0

কলকাতা, ১৩ জানুয়ারি  :  প্রতিবছরই গঙ্গাসাগর মেলা নিয়ে উৎসাহের অন্ত থাকে না পূণ্যার্থীদের। কিন্তু চলতি বছর করোনা আবহে ভুগছে দেশ তথা রাজ্য। এরই মাঝে শুরু হয়ে গিয়েছে গঙ্গাসাগর মেলা। কিন্তু কিছু দিন আগেই গঙ্গাসাগর মেলা নিয়ে জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়। তবে, অবশেষে বুধবার গঙ্গাসাগর মেলার ছাড়পত্র দিল কলকাতা হাইকোর্ট। 
কথায়় বলে সব তীর্থ বারবার গঙ্গাসাগর একবার। এই চলতি কথা উস্কে প্রতিবছর গঙ্গাসাগরে ভিড় জমায় অজস্র ভক্তরা। চলতি বছর করোনা কাঁটায় ভুগছে সকলে। তাই প্রতিবছরের মতো এবছর  গঙ্গাসাগরের ভিড় হলে  সেটা চিন্তার বিষয় হয়ে যেতে পারে। সেই সমস্ত কিছু ভেবে গত ৪ জানুয়ারি গঙ্গাসাগর মেলা নিয়ে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেন অজয় দে। শুধু তাই নয় গঙ্গাসাগর মেলা চত্বরকে কনটেনমেন্ট জোন ঘোষণার পাশাপাশি ভিড় নিয়ন্ত্রণে গাইডলাইন জারির আরজিও জানিয়েছিলেন তিনি। এরপরই প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ সাফ জানিয়ে দেয় যেহুতু বর্তমানে করোনা আতঙ্কে ভুগছে সকলে তাই  গঙ্গাসাগরে একসঙ্গে স্নান করতে গিয়ে নাক ও মুখ নিঃসৃত ড্রপলেট সহজেই জলে মিশে যেতে পারে। যেহেতু করোনা ভাইরাস মানুষের মুখ ও নাক নিঃসৃত ড্রপলেটের মাধ্যমে ছড়ায় তাই সেটা অত্যন্ত আতঙ্কের। এরকম ঘটনা ঘটলে একসঙ্গে বহু মানুষ সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা থাকবে। আর এরপরেই  এই বিষয়ের উপর রাজ্যের মুখ্যসচিব এবং স্বাস্থ্য অধিকর্তার তরফে একটি রিপোর্ট পেশ করা হয়। সেই রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছিল, সাগরের জল বহমান ফলত ড্রপলেটের মাধ্যমে করোনা সংক্রমণের সম্ভাবনা অনেকটাই কম। রাজ্যের এই রিপোর্টে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে বুধবার শর্তসাপেক্ষে গঙ্গাসাগর মেলার ছাড়পত্র দিল কলকাতা হাই কোর্ট । রিপোর্টের উপর ভিত্তি করেই মেলা এবং স্নানের শর্তসাপেক্ষে অনুমতি দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ।
 তবে, গঙ্গাসাগরে স্নানের ক্ষেত্রে কলকাতা হাইকোর্টের তরফে একাধিক শর্ত বেঁধে দেওয়া হয়েছে। একসঙ্গে অতিরিক্ত সংখ্যক পুণ্যার্থী জলে যাতে না নামতে পারে সেদিকেও নজর রাখতে বলা হয়েছে কলকাতা হাইকোর্টে তরফে। পাশাপাশি করোনা সম্পর্কিত স্বাস্থ্যবিধি মানার দিকে কড়া নজর রাখতে হবে । এমনকি কলকাতা হাইকোর্টের তরফে ই-স্নানের উপর বেশি জোর দেওয়ার কথা জানানো হয়েছে। পাশাপাশি যেসব পুণ্যার্থী গঙ্গাসাগরে পৌঁছেও ই-স্নান করবেন তাঁদের জন্য বিনামূল্যে রাজ্য সরকারকে কিট দিতে বলা হয়েছে । যদি কেউ বাড়িতে বসে ই-স্নানের কিট নিতে আগ্রহী হয় সেক্ষেত্রে তাদের থেকে শুধুমাত্র পরিবহণ খরচ ছাড়া নেওয়া হবে ।

Loading...