বাড়ি রাজ্য মালদা রাতের অন্ধকারে ছিনতাইয়ের চেষ্টা ,বাধা দিতে গিয়ে আক্রান্ত এক

রাতের অন্ধকারে ছিনতাইয়ের চেষ্টা ,বাধা দিতে গিয়ে আক্রান্ত এক

36
0

মালদা ,  ২৭ জানুয়ারি . রাতের অন্ধকারে পেট্রোল পাম্পের মালিকের বাড়ি যাওয়ার সময় পথ আটকে  অস্ত্র দেখিয়ে ছিনতাইয়ের চেষ্টা। বাধা দিতে গিয়ে আক্রান্ত চিকিৎসক ছেলে। আহত ছেলে মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ঘটনাটি ঘটেছে মালদার ইংরেজবাজার থানার বুধিয়া স্ট্যান্ড এলাকায়। বুধবার দুপুরে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে আহত চিকিৎসক অভিযোগ দায়ের করে ইংলিশ বাজার থানায়। আহত চিকিৎসকের লোহার রড দিয়ে ডান কান ফাটিয়ে দেয় দুষ্কৃতীরা। তাদের কাছ থেকে পেট্রোল পাম্পের 160,000 টাকা নিয়ে পালাই দুষ্কৃতীরা ।কোনরকমে প্রাণে বেঁচে এলাকা থেকে পালিয়ে যায় ওই চিকিৎসক ও পেট্রোল পাম্পের মালিক তার বাবা। আহত চিকিৎসকের নাম ডাক্তার মাসিরুদ্দিন আহমেদ বর্তমানে সে বালুরঘাট হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার পদে যুক্ত।  কর্মসূত্রে বালুরঘাটে থাকলেও তাদের বাড়ি ইংরেজবাজার থানার নরহাট্টা গ্রাম পঞ্চায়েতের বুধিয়া এলাকায়। জানা যায় পুকুরিয়া থানার পীরগঞ্জ কুচিয়াহি এলাকায়  ওই চিকিৎসক এর একটি পেট্রলপাম আছে। সেই পেট্রলপাম দেখাশোনা করে তার বাবা মোহাম্মদ আকিমুদ্দিন। বেশ কিছুদিন আগে ওই চিকিৎসক ছুটিতে বাড়িতে এসেছিলেন এবং বর্তমানে সে পেট্রলপাম্পে দেখাশোনা করতেন। মঙ্গলবার রাত্রে তার বাবা পেট্রোল পাম্প থেকে বেরিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন তখনই বুধিয়া স্ট্যান্ডে বেশ কিছু দুষ্কৃতী তার পথ আটকায় তার বাবাকে মারধর করা হয় খবর পেয়ে তখনই ছেলেও পেট্রলপাম থেকে বেরিয়ে যায়। বাবাকে দুষ্কৃতীদের হাত থেকে বাঁচাতে গেলে দুষ্কৃতীরা তার ওপরও চড়াও হয় লোহার রড দিয়ে তার ডান কানে আঘাত করে এবং তারপরই তাদের কাছ থেকে পেট্রোল পাম্পের টাকা 1 লাখ 60 হাজার টাকা নিয়ে ছিনতাইকারীরা পালিয়ে যায়। তারাও আহত অবস্থায় মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য চলে আসে। এদিকে বুধবার দুপুরে সম্পূর্ণ ঘটনার বিবরণ জানিয়ে ইংরেজবাজার থানার পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ করে আক্রান্ত চিকিৎসক ও তার বাবা । দুষ্কৃতীদের মধ্যে দুজন ব্যক্তিকে চিহ্নিত ইতিমধ্যেই করা হয়েছে তাদের নাম মহিবুল শেখ ও আন্সার শেক তারা এলাকায় বাসিন্দা বলে প্রাথমিকভাবে জানা যাচ্ছে। অভিযুক্ত দুজন দুষ্কৃতীর নামে ইতিমধ্যেই লিখিত অভিযোগ করেছে আক্রান্ত চিকিৎসক। অভিযুক্ত দুই দুষ্কৃতী এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে সমাজ বিরোধী কাজের সঙ্গে যুক্ত আছে বলে জানা যায় ।পুরো বিষয়টি নিয়ে ইংরেজবাজার থানার পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।

মালদা ,  ২৭ জানুয়ারি . রাতের অন্ধকারে পেট্রোল পাম্পের মালিকের বাড়ি যাওয়ার সময় পথ আটকে  অস্ত্র দেখিয়ে ছিনতাইয়ের চেষ্টা। বাধা দিতে গিয়ে আক্রান্ত চিকিৎসক ছেলে। আহত ছেলে মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ঘটনাটি ঘটেছে মালদার ইংরেজবাজার থানার বুধিয়া স্ট্যান্ড এলাকায়। বুধবার দুপুরে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে আহত চিকিৎসক অভিযোগ দায়ের করে ইংলিশ বাজার থানায়। আহত চিকিৎসকের লোহার রড দিয়ে ডান কান ফাটিয়ে দেয় দুষ্কৃতীরা। তাদের কাছ থেকে পেট্রোল পাম্পের 160,000 টাকা নিয়ে পালাই দুষ্কৃতীরা ।কোনরকমে প্রাণে বেঁচে এলাকা থেকে পালিয়ে যায় ওই চিকিৎসক ও পেট্রোল পাম্পের মালিক তার বাবা। আহত চিকিৎসকের নাম ডাক্তার মাসিরুদ্দিন আহমেদ বর্তমানে সে বালুরঘাট হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার পদে যুক্ত।  কর্মসূত্রে বালুরঘাটে থাকলেও তাদের বাড়ি ইংরেজবাজার থানার নরহাট্টা গ্রাম পঞ্চায়েতের বুধিয়া এলাকায়। জানা যায় পুকুরিয়া থানার পীরগঞ্জ কুচিয়াহি এলাকায়  ওই চিকিৎসক এর একটি পেট্রলপাম আছে। সেই পেট্রলপাম দেখাশোনা করে তার বাবা মোহাম্মদ আকিমুদ্দিন। বেশ কিছুদিন আগে ওই চিকিৎসক ছুটিতে বাড়িতে এসেছিলেন এবং বর্তমানে সে পেট্রলপাম্পে দেখাশোনা করতেন। মঙ্গলবার রাত্রে তার বাবা পেট্রোল পাম্প থেকে বেরিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন তখনই বুধিয়া স্ট্যান্ডে বেশ কিছু দুষ্কৃতী তার পথ আটকায় তার বাবাকে মারধর করা হয় খবর পেয়ে তখনই ছেলেও পেট্রলপাম থেকে বেরিয়ে যায়। বাবাকে দুষ্কৃতীদের হাত থেকে বাঁচাতে গেলে দুষ্কৃতীরা তার ওপরও চড়াও হয় লোহার রড দিয়ে তার ডান কানে আঘাত করে এবং তারপরই তাদের কাছ থেকে পেট্রোল পাম্পের টাকা 1 লাখ 60 হাজার টাকা নিয়ে ছিনতাইকারীরা পালিয়ে যায়। তারাও আহত অবস্থায় মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য চলে আসে। এদিকে বুধবার দুপুরে সম্পূর্ণ ঘটনার বিবরণ জানিয়ে ইংরেজবাজার থানার পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ করে আক্রান্ত চিকিৎসক ও তার বাবা । দুষ্কৃতীদের মধ্যে দুজন ব্যক্তিকে চিহ্নিত ইতিমধ্যেই করা হয়েছে তাদের নাম মহিবুল শেখ ও আন্সার শেক তারা এলাকায় বাসিন্দা বলে প্রাথমিকভাবে জানা যাচ্ছে। অভিযুক্ত দুজন দুষ্কৃতীর নামে ইতিমধ্যেই লিখিত অভিযোগ করেছে আক্রান্ত চিকিৎসক। অভিযুক্ত দুই দুষ্কৃতী এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে সমাজ বিরোধী কাজের সঙ্গে যুক্ত আছে বলে জানা যায় ।পুরো বিষয়টি নিয়ে ইংরেজবাজার থানার পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।

মালদা ,  ২৭ জানুয়ারি . রাতের অন্ধকারে পেট্রোল পাম্পের মালিকের বাড়ি যাওয়ার সময় পথ আটকে  অস্ত্র দেখিয়ে ছিনতাইয়ের চেষ্টা। বাধা দিতে গিয়ে আক্রান্ত চিকিৎসক ছেলে। আহত ছেলে মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ঘটনাটি ঘটেছে মালদার ইংরেজবাজার থানার বুধিয়া স্ট্যান্ড এলাকায়। বুধবার দুপুরে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে আহত চিকিৎসক অভিযোগ দায়ের করে ইংলিশ বাজার থানায়। আহত চিকিৎসকের লোহার রড দিয়ে ডান কান ফাটিয়ে দেয় দুষ্কৃতীরা। তাদের কাছ থেকে পেট্রোল পাম্পের 160,000 টাকা নিয়ে পালাই দুষ্কৃতীরা ।কোনরকমে প্রাণে বেঁচে এলাকা থেকে পালিয়ে যায় ওই চিকিৎসক ও পেট্রোল পাম্পের মালিক তার বাবা। আহত চিকিৎসকের নাম ডাক্তার মাসিরুদ্দিন আহমেদ বর্তমানে সে বালুরঘাট হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার পদে যুক্ত।  কর্মসূত্রে বালুরঘাটে থাকলেও তাদের বাড়ি ইংরেজবাজার থানার নরহাট্টা গ্রাম পঞ্চায়েতের বুধিয়া এলাকায়। জানা যায় পুকুরিয়া থানার পীরগঞ্জ কুচিয়াহি এলাকায়  ওই চিকিৎসক এর একটি পেট্রলপাম আছে। সেই পেট্রলপাম দেখাশোনা করে তার বাবা মোহাম্মদ আকিমুদ্দিন। বেশ কিছুদিন আগে ওই চিকিৎসক ছুটিতে বাড়িতে এসেছিলেন এবং বর্তমানে সে পেট্রলপাম্পে দেখাশোনা করতেন। মঙ্গলবার রাত্রে তার বাবা পেট্রোল পাম্প থেকে বেরিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন তখনই বুধিয়া স্ট্যান্ডে বেশ কিছু দুষ্কৃতী তার পথ আটকায় তার বাবাকে মারধর করা হয় খবর পেয়ে তখনই ছেলেও পেট্রলপাম থেকে বেরিয়ে যায়। বাবাকে দুষ্কৃতীদের হাত থেকে বাঁচাতে গেলে দুষ্কৃতীরা তার ওপরও চড়াও হয় লোহার রড দিয়ে তার ডান কানে আঘাত করে এবং তারপরই তাদের কাছ থেকে পেট্রোল পাম্পের টাকা 1 লাখ 60 হাজার টাকা নিয়ে ছিনতাইকারীরা পালিয়ে যায়। তারাও আহত অবস্থায় মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য চলে আসে। এদিকে বুধবার দুপুরে সম্পূর্ণ ঘটনার বিবরণ জানিয়ে ইংরেজবাজার থানার পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ করে আক্রান্ত চিকিৎসক ও তার বাবা । দুষ্কৃতীদের মধ্যে দুজন ব্যক্তিকে চিহ্নিত ইতিমধ্যেই করা হয়েছে তাদের নাম মহিবুল শেখ ও আন্সার শেক তারা এলাকায় বাসিন্দা বলে প্রাথমিকভাবে জানা যাচ্ছে। অভিযুক্ত দুজন দুষ্কৃতীর নামে ইতিমধ্যেই লিখিত অভিযোগ করেছে আক্রান্ত চিকিৎসক। অভিযুক্ত দুই দুষ্কৃতী এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে সমাজ বিরোধী কাজের সঙ্গে যুক্ত আছে বলে জানা যায় ।পুরো বিষয়টি নিয়ে ইংরেজবাজার থানার পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।

Loading...