বাড়ি রাজ্য মালদা মমতা ব্যানার্জির উপর মানুষের বিশ্বাস উঠে গেছে। কাজেই এবারে আর তৃণমূল...

মমতা ব্যানার্জির উপর মানুষের বিশ্বাস উঠে গেছে। কাজেই এবারে আর তৃণমূল সরকার পশ্চিমবঙ্গের থাকছে না- কৈলাস বিজয়বর্গীয়

52
0

মালদা, ০২ জানুয়ারি ।   মমতা ব্যানার্জির উপর মানুষের বিশ্বাস উঠে গেছে।  কাজেই এবারে আর তৃণমূল সরকার পশ্চিমবঙ্গের থাকছে না। পাশাপাশি আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে নির্বাচন কমিশনের কাছে ও কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েনের দাবি করা হয়েছে।  শনিবার মালদায় পঞ্চায়েত জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে সম্মেলনে যোগ দিয়ে একথা বলেন বিজেপির কেন্দ্রীয় কমিটির নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়। পাশাপাশি তিনি সৌরভ গাঙ্গুলীর হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ার ঘটনায় তাঁর পরিবারকে সমবেদনা জানিয়েছেন। খোঁজ নিয়েছেন ভারতের ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়কের ।  এদিন বিকেলে হেলিকপ্টারে মালদায় পৌঁছান বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয় । মালদা শহরের কলেজ অডিটোরিয়ামে বিজেপির পঞ্চায়েত জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে একটি সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছিল দলের পক্ষ থেকে। আর সেই কর্মসূচিতেই যোগদান করেন বিজেপি নেতা কৈলাশ বিজয়বর্গীয়। এই কর্মসূচির পর সেখানে একটি সাংবাদিক বৈঠক করেন তিনি।
বিজেপি নেতা কৈলাশ বিজয়বর্গীয় বলেন, চার মাস পর পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচন । সেই নির্বাচনে মানুষের রায় শেষ কথা বলবে। দেশের সবথেকে বড় আদালত হচ্ছে জনগণের আদালত। আর সেই জনগণের আদালতে মমতা ব্যানার্জি বিশ্বাস হারিয়ে ফেলেছেন। এবারে আর এই সরকার কোনোভাবেই আসতে পারবে না।
বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয় এদিন আরো বলেন, কৃষক আন্দোলনে বামপন্থীরা যোগদান করছে। আর সেই বামপন্থীদের সমর্থন করছে মমতা ব্যানার্জি। সুতরাং এখানে পরিষ্কার যে বামেদের সঙ্গে তৃণমূলের বরাবর আঁতাত রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী যখন দেশের উন্নয়ন করছেন । সাধারণ মানুষের কথা ভাবছেন। তখন বিরোধিতা করার জন্য বিরোধীরা একজোট হয়ে প্রধানমন্ত্রীর উন্নয়নমূলক কাজের বিরোধিতা করছে। আবার রাজ্যস্তরে বামফ্রন্ট এবং তৃণমূল পৃথকভাবে একে অপরের বিরুদ্ধে সমালোচনা করছে। রাজনৈতিক লড়াই করছে। এভাবে মানুষকে বোকা বানানো যাবে না । যেখানে রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে বিরোধীপক্ষকে জোরদার হওয়া উচিত , সে ক্ষেত্রে এমনটা হচ্ছে না ।
কৈলাস বিজয়বর্গীয় এদিন আরো বলেন, এরাজ্যে রাজনীতিকরণের মধ্যে দিয়ে অপরাধীকরণ হয়ে গিয়েছে। অপরাধীদের সঙ্গে একাংশ অফিসারদের যোগাযোগ রয়েছে। আসন্ন নির্বাচনে নির্বাচন কমিশন ঠিক করবে,  যাতে করে এরাজ্যের মানুষ সুষ্ঠু এবং নির্বিঘ্নে ভোট দিতে পারেন। তাই আমরা নির্বাচন কমিশনের কাছে দাবি করেছি আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করতে হবে।
বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয় বলেন, সৌরভ গাঙ্গুলীর অসুস্থতার কথা শুনেছি। আমি মালদায় আসার পথেই তার স্ত্রী ডোনা গাঙ্গুলীর সঙ্গে ফোনে কথা বলেছি। উনার শারীরিক অবস্থার খোঁজখবর নিয়েছি। ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করি উনি যেন দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠুক।

Loading...