বাড়ি রাজ্য দক্ষিণ ২৪পরগনা বারুইপুরে স্ত্রীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে খুন, পলাতক অভিযুক্ত স্বামী

বারুইপুরে স্ত্রীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে খুন, পলাতক অভিযুক্ত স্বামী

111
0

বারুইপুর, ১৯ নভেম্বর : পারিবারিক বিবাদের জেরে স্ত্রীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে খুনের অভিযোগ উঠল স্বামীর বিরুদ্ধে। সোমবার রাতে চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার বারুইপুর থানার অন্তর্গত মল্লিকপুর আমবাগান এলাকায়। নিহত মহিলার নাম, জুলেখা বেগম ওরফে নার্গিস (৩২)। অভিযোগ, স্ত্রীকে খুন করার পর থেকেই পলাতক অভিযুক্ত স্বামী সেখ আকবর আলি ওরফে আরমান। সোমবার রাতে বারুইপুর থানার পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। অভিযুক্তের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে বারুইপুর থানার পুলিশ। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রের খবর, পেশায় মাংস ব্যবসায়ী আরমান। নার্গিস আয়ার কাজ করতেন। তাঁদের দু’টি সন্তানও রয়েছে। গত দু’মাস ধরে মল্লিকপুর এলাকায় ভাড়া থাকত এই পরিবারটি। কিন্তু, গত তিন চারদিন ধরে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে অশান্তি লেগেছিল। আরমান বহিরাগত যুবকদের বাড়িতে নিয়ে এসে মদ্যপানের আসর বসাত। বাড়িতে মদের আসরের প্রতিবাদ করেছিল নার্গিস। তা নিয়েই কার্যত দু’জনের মধ্যে অশান্তি চলছিল। এছাড়াও, বাড়ি ভাড়ার রসিদ কার নামে হবে তা নিয়ে বিবাদ চলছিল স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে। আর সেই অশান্তির জেরেই নার্গিসকে গলায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে খুন করে বলে অভিযোগ। সোমবার সন্ধ্যায় বাড়িতে কেউ ছিলেন না। নার্গিসের দুই সন্তান প্রাইভেট টিউশন পড়তে গিয়েছিল। বাড়ির পাশে জলসা হওয়ায় সেখানে গিয়েছিলেন বাড়িওয়ালারা। সেই সুযোগেই মাংস কাটার চপার দিয়ে নার্গিসের গলায় একাধিক আঘাত করে আরমান। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তার। এরপর নার্গিসের মা আবেদা বেগমকে ফোনে আরমান জানায় নার্গিস বারুইপুর স্টেশনে ট্রেন থেকে পড়ে গিয়েছে। সেখানে গিয়ে আবেদা কিছুই না পেয়ে নার্গিসের বাড়িতে এসে দেখেন ঘরের দরজা বন্ধ। সেই দরজা খুলে ভিতরে ঢুকতেই দেখেন মেয়ের রক্তাক্ত মৃতদেহ পড়ে রয়েছে। তিনি চিৎকার শুরু করলে আশপাশের মানুষজন ছুটে আসেন। খবর দেওয়া হয় বারুইপুর থানায়। বারুইপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যায়। এই ঘটনায় এলাকার মানুষের মধ্যে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। অন্যদিকে, ঘটনার পর থেকে পলাতক আরমানের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে বারুইপুর থানার পুলিশ। 

Loading...