বাড়ি রাজ্য বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে ভিডিও কনফারেন্সে প্রশাসনের কর্তারা

বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে ভিডিও কনফারেন্সে প্রশাসনের কর্তারা

117
0

কলকাতা, ২ অক্টোবর : বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে ছুটির দিনে ভিডিও কনফারেন্স হল নবান্নে।   এ দিনের ভিডিও কনফারেন্সে ছিলেন রাজ্যের মুখ্য সচিব রাজীব সিনহা, স্বরাষ্ট্রসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়‌ ও  সংশ্লিষ্ট ৮ দফতরের সচিব।  বন‍্যা পরিস্থিতি উদ্ভূত হ‌ওয়া জেলার জেলাশাসকদের সঙ্গে হয় এই ভিডিও কনফারেন্স। রাজ্যের ত্রাণ, প্রাকৃতিক দুর্যোগ প্রভৃতি দফতরের আধিকারিক ও কর্মীদের ছুটি বাতিল করে সতর্ক থাকার নির্দেশ দেন পদস্থ কর্তারা। 

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মঙ্গলবারই অভিযোগ করেছিলেন, অনেকবার চিঠি দেওয়া হয়েছে তবুও ডিভিসি রাজ্যকে না জানিয়েই জল ছাড়ছে। বিহার ও ঝাড়খণ্ডে অতিরিক্ত বৃষ্টিপাত হয়। তার ফল পশ্চিমবঙ্গ ভুগতে হচ্ছে। রাজ্যে একটি মনিটরিং সেল তৈরি করা হয়েছে, তারা বন্যা পরিস্থিতির ওপর নজর রাখবে। ড্যামগুলিকে ড্রেজিং করা হয় না। জল ধারণের ক্ষমতাও কমে যাচ্ছে। এর ফলে সমস্যা দেখা দিচ্ছে। এর পাশাপাশি বেশ কয়েকজনকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে পরিস্থিতির ওপর নজর রাখতে। তাঁরা হলেন হাওড়ায় রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়  ও অরূপ রায়, হুগলিতে ববি হাকিম, মালদায় জাভেদ খান ও গোলাম রব্বানী। মুর্শিদাবাদে শুভেন্দু অধিকারী, মেদিনীপুরে সুব্রত মুখোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে জাভেদ খান যাবেন মুর্শিদাবাদ ও মালদহে। নবান্ন সূত্রে এ দিন জানা গিয়েছে, মালদা জেলার বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত। পাঁচটি ব্লকের প্রায় পাঁচ লক্ষের বেশী বাসিন্দা জলবন্দী গঙ্গা, ফুলহার ও মহানন্দা নদীর জলে। আজও এই নদীগুলির জলস্ফীতি ঘটেছে। রাজ্য সরকারের এক প্রতিনিধি দল বন্যা পরিস্থিতি সরজমিনে খতিয়ে দেখতে মালদায় যায়। প্রতিনিধি  ছিলেন রাজ্যের  মন্ত্রী জাভেদ  খান ও গোলাম রব্বানি। এছাড়া ছিলেন মালদা জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভানেত্রী মৌসম বেনজির নুর সহ অন্যান্য নেতৃত্ব। সূত্রের খবর, জেলার বন্যা কবলিত কালিয়াচক ২নং, কালিয়াচক ৩নং,রতুয়া ১নং, মানিকচক ও ইংরেজবাজার  ব্লকে এই প্রতিনিধিদল দুর্গত মানুষদের সাথে কথা বলেন। শুকনো খাবার ও ত্রিপল বিলি করেন। বন্যার্ত এলাকা পরিদর্শন করে এই  প্রতিনিধিদলের সদস্যরা জানান, দুর্গতদের আর কী প্রয়োজন, তার রিপোর্ট তৈরি করে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে জানাবেন।

Loading...