বাড়ি কলকাতা ফের শুরু হচ্ছে কলকাতা মেডিকেল কলেজের বহির্বিভাগ পরিষেবা

ফের শুরু হচ্ছে কলকাতা মেডিকেল কলেজের বহির্বিভাগ পরিষেবা

58
0

কলকাতা, ৬জুন : মেডিকেল কলেজ হাসপাতালকে কোভিড হাসপাতাল হিসেবে ঘোষণা করার পর ১১ মে থেকে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল ওই হাসপাতালের বহির্বিভাগ পরিষেবা। এর ২৮ দিনের মাথায় ফের খুলে দেওয়া হচ্ছে ১৮৫ বছরের প্রাচীন এই মেডিকেল কলেজে হাসপাতালের বহির্বিভাগ পরিষেবা। সোমবার থেকে এই হাসপাতালে আবার বহির্বিভাগ পরিষেবা স্বাভাবিক করার কথা বলা হয়েছে। দেড় মাস আগে এই শতাব্দী প্রাচীন হাসপাতালের গ্রিন বিল্ডিং এবং সুপার স্পেশালিটি বিল্ডিংয়ে করোনার চিকিৎসা শুরু হয়। এর কিছু দিন পরেই সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার ভয়ে ওই হাসপাতালের রোগীদের যেমন অন্যত্র স্থানান্তর করা হয় ঠিক তেমনি বন্ধ করে দেওয়া হয় বহির্বিভাগ ও জরুরী পরিষেবা। কিন্তু পরে মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষের তরফে জানানো হয়েছে, অকারনে জরুরী বিভাগের পরিষেবা বন্ধ রাখায় অসুবিধে হচ্ছে রোগীদের। যতদিন না করোনা পজেটিভ কোনও রোগী আসছেন ততদিন চালু থাকবে জরুরি বিভাগ। এরপর এখন প্রায় ৩০০ করোনা আক্রান্ত রোগী ভর্তি হয়েছে এই হাসপাতালে। এই মুহূর্তে বহির্বিভাগ পরিষেবা চালু করলে সংক্রমণ ছড়িয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করেছেন অনেক চিকিৎসকরা।  অন্যদিকে, বহির্বিভাগ পরিষেবা চালু না থাকায় বিপদে পড়েছে সাধারণ অন্যান্য রোগীরা। তাই সংক্রমণ এড়িয়ে কী ভাবে আউটডোর খোলা যায় তার পথ বের করতে রোগী কল্যাণ সমিতি, বিভিন্ন বিভাগীয় প্রধান এবং আধিকারিকরা বৈঠকে বসেছেন। গ্রিন বিল্ডিং সুপার স্পেশালিটি বিল্ডিংয়ের করোনা আক্রান্ত এবং সারি (যাঁদের উপসর্গ রয়েছে) রোগীরা রয়েছেন। একাংশের মত, এই দুই বিল্ডিংকে আলাদা করতে পাঁচিল তুলে দেওয়া হবে। যাতে অন্যদিকে থাকা জরুরি বিভাগ, এমসিএইচ বিল্ডিং এবং এজরা বিল্ডিংয়ে পরিষেবা শুরু করা যাবে। তাতে অনেক রোগী পরিষেবা পাবেন। এই হাসপাতালে অন্যান্য চিকিৎসা বন্ধ থাকার ফলে হেমোটোলজি, ক্যানসার বিভাগে যাঁরা নিয়মিত চিকিৎসা করাতে আসেন তাঁরা সেই সুযোগ পাচ্ছেন না। তাই কী ভাবে আউটডোরে রোগী দেখা হবে, কী ভাবে ভিড় এড়ানো সম্ভব, সে ব্যাপারেই আলোচনা করছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

Loading...