বাড়ি দেশ প্রতাপগড়ে পুলিশ এনকাউন্টারে নিহত দুষ্কৃতী

প্রতাপগড়ে পুলিশ এনকাউন্টারে নিহত দুষ্কৃতী

143
0

প্রতাপগড়, ২৩ অক্টোবর :  মঙ্গলবার রাতে উত্তর প্রদেশের  প্রতাপগড় জেলার রানীগঞ্জ থানা এলাকায় এসটিএফ ও পুলিশের একটি যৌথ দলের এনকাউন্টারে  নিহত হয়েছে এক কুখ্যাত দুষ্কৃতী। যার মাথার দাম রাখা হয়েছিল ৫০ হাজার টাকা । এনকাউন্টারে আহত এক এসটিএফ জওয়ানকে জেলা হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছে।  এডিজি (প্রয়াগরাজ জোন) সুজিত পান্ডে এসটিএফ দলকে এক লাখ টাকার নগদ পুরষ্কার দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন। বুধবার সকালে পুলিশ সুপার অভিষেক সিংহ এই তথ্য জানিয়েছেন।
তিনি জানান, এনকাউন্টারে নিহত দুষ্কৃতী হলেন কান্নুজ জেলার কসাই টোলা থানার কোতোয়ালি এলাকার বাবলু পতলা ওরফে সাজিদ।  প্রতাপগড় শহরের ট্রিপল হত্যা মামলা ছাড়াও  হত্যা, ছিনতাই ও ডাকাতির মতো বেশ কিছু মামলায় অভিযুক্ত ছিলেন সাজিদ । তার অনেকদিন ধরে সন্ধান করছিল পুলিশ। সাজিদ কচ্ছ-বনিয়ান গ্যাংয়ের সদস্য ছিল।  রানিগঞ্জ থানা এলাকার চৌহরজান ব্রিজের নিচে এই এনকাউন্টার হয়েছে।  তিনি তার দলের আরও সদস্যের সাথে সেখানে উপস্থিত ছিলেন।  দুষ্কৃতীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। পাল্টা গুলি চালায় পুলিশ। তখনই সাজিদের গুলি লাগে। গুরুতর আহত অবস্থায় সাজিদকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেই তাকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। ঘটনাস্থল থেকে একটি কারখানায় তৈরি বন্দুক, একটি পিস্তল, ও  প্রচুর পরিমাণে কার্তুজ উদ্ধার করা হয়েছে।পুলিশ জানিয়েছে, ২০০৩ সালে সাজিদ প্রতাপগড়ে ডাকাতির ঘটনায়  জড়িত ছিল। ডাকাতি করার সময় একই পরিবারের তিন সদস্যকে হত্যা করেছিল।  এই মামলায় ২০০৭ সালে তিন অপরাধীকে মৃত্যুদন্ডের সাজা দেয় বিচারক ল।  এই মামলায় সাজিদের সন্ধার দেওয়ার জন্য ৫০,০০০ টাকার পুরষ্কার ঘোষণা করা হয়েছিল।  কানপুর ও মেরঠেও ডাকাতির ও হত্যার ঘটনায় জড়িত ছিল সে।  একবার সাহারানপুরে পুলিশ হেফাজত থেকে পালিয়ে গেছিল সাজিদ। ।

Loading...