বাড়ি ভ্রমণ পুরুলিযা প্রশাসনের নযা উদ্যোগে খুলল ‘পলাশবিথি’র দরজা

পুরুলিযা প্রশাসনের নযা উদ্যোগে খুলল ‘পলাশবিথি’র দরজা

190
0


‘পর‌্যটন শহর’ পুরুলিযায বেড়াতে আসা পর‌্যটকদের এবার থেকে ঠাঁই দেবে ‘পলাশবিথি’| তাই দোলˆ-হোলি, এসব উত্সবেই পুরুলিযা পুরসভা পরিচালিত এই পর‌্যটক আবাস ‘পলাশবিথি’র দরজা খুলল| সম্প্রতি, পুরুলিযার পুরপ্রধান শামিম দাদ খানের হাত ধরেই এই পর‌্যটক আবাস আনুষ্ঠানিকভাবে চালু হল বলে জানতে পারা গিযেে|
সম্প্রতি এই আবাস খুললেও দোল ও হোলিতে ঠিকই ৱুকিং পেযে গিযেিল| এই জেলার পর‌্যটনের প্রসারেই পুরুলিযা পুরসভা এই শহরের সাহেব বাঁধ ঘেঁষে এই পর‌্যটক আবাস তৈরি করে| এই পুরসভার নিজস্ব তহবিলের প্রায বাইশ লক্ষ টাকা অর্থে এই পলাশবিথি গড়ে ওঠে| পুরসভার ক্যাম্পাসের একপাশে এই আবাসে একটি রেস্তোঁরা খোলারও পরিকল্পনা রযেে পুরুলিযা পুরসভার| পুরপ্রধান শামিম দাদ খান জানান, রাজ্য সরকার চাইছে, শহর পুরুলিযাকে ‘টু্যরিস্ট লুক’ দিতে| এই জেলায ছড়িযে ছিটিযে থাকা পর‌্যটনকেন্দ্রগুলির মুখ হোক এই শহর| তাই শহর সাজাতে আমরা সেই ভাবেই কাজ শুরু করেছি| সেই কাজের পদক্ষেপ“ সহ পর‌্যটনের প্রসারে এই আবাস তৈরি করা হল| আপাতত ৪টি ঘর দিযে এই আবাস চালু হলেও পরবর্তীকালে আরও বেশি করে এই পলাশবিথিতে পর‌্যটকদের জাযগা দিতে ইতিমধ্যেই ভাবনাˆ-চিন্তা শুরু করেছে পুরসভা| যে রেস্তোঁরা খোলার পরিকল্পনা রযেে| স্বনির্ভর দলকে দিযে চালানো যায কিনা সেই চিন্তাভাবনাও চলছে| তবে পর‌্যটনের প্রসারে পর‌্যটক আবাস হলেও পুরসভার পর‌্যটন বিভাগের কাজ কিন্তু সেভাবে হচ্ছে না বলে অভিযোগ| তবে এই বিষযটি যাতে সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনার মাধ্যমে করা যায সেই চেষ্টা করছে পুরসভা|
রাজ্যের একাধিক পুরসভার অতিথি আবাস বা পর‌্যটক আবাস থাকলেও এই পুরসভার ছিল না| অথচ পুরুলিযা সামগ্রিকভাবে একটি পর‌্যটনকেন্দ্র| সেই কথা মাথায রেখেই বছর দুযে ধরে নিজস্ব তহবিল থেকে এই পর‌্যটক আবাস গড়ল পুরসভা| তিনতলার এই পর‌্যটক আবাসে দ্বিতীয ও তৃতীয তল মিলে মোট চারটি ঘর রযেে| এই আবাস থেকেই সাহেববাঁধের সৌন্দর‌্য উপভোগ করতে পারছেন পর‌্যটকরা|
পুরসভা জানিযেে, খরচ কমাতে পুরসভা তাদের নিজস্ব ইঞ্জিনিযারের দেওযা পরিকল্পনাতেই এই আবাস তৈরির কাজ করেছে| পুজোর আগেই এই আবাস চালু করার কথা ছিল| কিন্তু তা করে উঠতে পারেনি| এবার পুরভোটের কথা মাথায রেখে এই আবাস তড়িঘড়ি চালু করল| পুরসভা আরও জানিযেে যে, শীতের মরসুমে জেলার পর‌্যটনকেন্দ্রগুলিতে এতটাই ভিড় হয যে পর‌্যটকরা সেখানে থাকার জাযগা পান না| ফলে শহর পুরুলিযার হোটেল ও লজগুলিতেই আশ্রয নেন পর‌্যটকরা| মাঝে মধ্যে সেখানেও ঘর পাওযা যায না|
পলাশবিথি এবার কিছুটা হলেও পর‌্যটকদের আশ্রযে চাহিদা মেটাবে| ফলে আযও বাড়বে পুরসভার| তাছাড়া এই পুরসভায নানা প্রকল্পের কাজে প্রায প্রতিদিনই রাজ্য স্তর থেকে আধিকারিকরা আসেন| ফলে তাদের রাত্রিবাসের ব্যবস্থা করতে হয| এবার ওই কাজে খরচ অনেকটাই বাঁচবে পুরসভার| এখন এই আবাস ৱুকিং করার জন্য কোন ওযেসাইট চালু না হলেও পরবর্তীকালে তা করবে| তাই এখন পুরসভা থেকেই এই পলাশবিথির ৱুকিং নেওযা হচ্ছে|

Loading...