বাড়ি অন্যান্য পথ শিশুদের পাশে মূলস্রোতে ফিরিয়ে আনার লক্ষ্য, অভিনব উদ্যোগ তারকেশ্বর থানা ও...

পথ শিশুদের পাশে মূলস্রোতে ফিরিয়ে আনার লক্ষ্য, অভিনব উদ্যোগ তারকেশ্বর থানা ও সেচ্ছাসেবী সংস্থার

411
0

হুগলি, ১৫ নভেম্বর : কেউ কেউ ড্রেনড্রাইটের নেশায় বুঁদ, কেউ বা আবার অন্য নানা ধরনের নেশার গভীর সমুদ্রে আচ্ছন্ন। তারকেশ্বর থানা এলাকা জুড়ে এরকমই অবস্থা বহু পথ শিশুর। কারও খাদ্যের অভাব কারও বা বস্ত্রের, শিক্ষার আলোতো তাদের চৌকাঠই মারায়নি। শিশু দিবসের দিন তারকেশ্বরে স্টেশন চত্বরে ঝুপড়িতে বসবাসকারী ২২ জন শিশুর শিক্ষা, স্বাস্থ্য, খাদ্য-সহ সমস্ত দায়িত্ব নিল এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা। হুগলির তারকেশ্বর থানার ওসি অমিত মিত্রের হাত ধরে একটি সেচ্ছাসেবী সংস্থা এই সব শিশুদের এক মাসের খাওয়ার ব্যবস্থাও করে দিলেন। তারকেশ্বর বাসস্ট্যান্ড লাগোয়া একটি হোটেলে এক মাসের খাবার ব্যবস্থা করা হয়।এরই পাশাপাশি এদের হাতে দেওয়া হল একটি করে বল। হিন্দুস্থান সমাচারে প্রতিনিধি কে ওসি অমিত মিত্র বলেন, ওই শিশুদের জন্য সারা বছর খাদ্যের ব্যবস্থাও করা হবে এই সংস্থার পক্ষ থেকে। যাদের দু’বেলা পেটভরে খাবার জোটে না তারাই নিজেদের অজান্তে নেশায় আসক্ত হয়ে হারিয়ে যাচ্ছে অন্ধকার জগতে। এদেরকে স্বাভাবিক ছন্দে ফিরিয়ে অানাই মূল লক্ষ্য।
স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সদস্য মৈত্রেয়ী ব্যানার্জি বলেন, “বর্ধমান ,ব্যান্ডেল, শেওড়াফুলি-সহ বেশ কয়েকটি স্টেশন চত্বর এলাকার পথ শিশুদের নিয়ে আমরা কাজ করছি। তাদের স্বাভাবিক পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে শিক্ষা থেকে শুরু করে খাদ্য-স্বাস্থ্য পড়াশোনার উপযুক্ত পরিবেশ গড়ে তোলা সব কিছুর বিষয়ে আমরা নজর রাখছি। তারকেশ্বরে এই ধরনের বহু শিশু রয়েছে তাদের মধ্যে ২২ জনকে নিয়ে আমরা কাজ শুরু করলাম। আগামী দিন অামরা শিশুর সংখ্যা বাড়তে থাকবে। প্রথমে তাদের সুস্থ পরিবেশে থাকার জন্য জীবনটা কি সেটা বোঝাচ্ছি। সমাজের সঙ্গে থাকার জন্য পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন সহ দাঁত মাজা থেকে শুরু করে দৈনন্দিন জীবনের ছোটখাটো বিষয় নিয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। সকালে তারা পেট ভরে ভাত খেয়ে পড়াশোনা করবে এরপর বাড়ি ফিরে যাবে। তারকেশ্বর স্টেশন সংলগ্ন ঝুপরিবাসি ছোট ছোট শিশুদের নেশা মুক্ত করে সমাজের মূলস্রোতে ফিরিয়ে আনতে কাজ করাই মূল লক্ষ্য। তাদের ডাকে সাড়া দিয়ে আমরা সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিলাম। আরপিএফ-এর পক্ষ থেকে একটি ঘর দেওয়া হয়েছে এদের পড়াশোনার জন্য। এই ধরনের উদ্যোগ আগামী দিনে সমাজে অপরাধ প্রবণ মানসিকতার যুবকের সংখ্যা কমাবে বলে জানান ওসি অমিত মিত্র।

Loading...