বাড়ি স্বাস্থ্য ট্রায়ালের তৃতীয় পর্যায়ে পৌঁছে গেল জনসন এন্ড জনসনের প্রতিষেধক

ট্রায়ালের তৃতীয় পর্যায়ে পৌঁছে গেল জনসন এন্ড জনসনের প্রতিষেধক

70
0

ওয়াশিংটন, ২৪ সেপ্টেম্বর : করোনা মহামারী রোধে প্রতিশোধক একান্ত ভাবেই জরুরি। প্রত্যেকদিন গোটা বিশ্বে লাফিয়ে চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা।মৃত্যুর সংখ্যাও উদ্বেগ বাড়াচ্ছে।এমন পরিস্থিতিতে বিশ্বের একাধিক দেশ প্রতিষেধক তৈরি প্রতিযোগিতায় নেমে পড়েছে। এই প্রতিযোগিতায় পিছিয়ে নেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বহুজাতিক সংস্থার জনসন এন্ড জনসন। তাদের নির্মিত প্রতিষেধকের আপাতত তৃতীয় ট্রায়ালে পৌঁছিয়ে গিয়েছে। ইবোলা ভ্যাকসিনের সফল রচিয়তা জনসন এন্ড জনসন বুধবার জানিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ বিশ্বের ২০০ টি শহরে ৬০ হাজার মানুষের ওপর ক্লিনিক্যাল ট্রাইল চালানোর প্রস্তুতি নিয়েছে।  বহুজাতিক এই সংস্থাটির তরফ থেকে দাবি করা হয়েছে সবকিছু ঠিকঠাক চললে আগামী বছরের শুরুর দিকে বাজারে তাদের তৈরি প্রতিষেধক নিয়ে আসা হবে।অন্যদিকে মাডরেনা এবং ব্রিটিশ কোম্পানি এস্ত্রাজেনিকাও দাবি করেছে যে নতুন বছরের প্রথম দিকেই তারা প্রতিষেধক সরবরাহ করবে বাজারে।ফাইজার নামক আরেকটি কোম্পানি দাবি করেছে যে আগামী মাসের শেষের দিকে তারা বাজারে নতুন ভ্যাকসিন নিয়ে আসবে।উল্লেখ করা যেতে পারে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে মাডরেনা এবং ফাইজারের পরে জনসন এন্ড জনসন প্রতিষেধক তৈরির কাজ করে চলেছে। বর্তমানে গোটা বিশ্বের দশটি এমন কোম্পানি রয়েছে যারা করোনা মহামারীর প্রতিষেধক তৈরির কাজে ট্রায়ালের তৃতীয় স্তরে উঠতে পেরেছে। যদিও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা হু এর তরফ থেকে দাবি করা হয়েছে পরীক্ষা-নিরীক্ষা যেভাবে এগোচ্ছে তাতে করে আগামী বছরের মাঝামাঝি প্রতিষেধক আসতে পারে বাজারে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতিতে করোনার প্রতিষেধক তৈরির কাজ যে গুরুত্বপূর্ণ হতে চলেছে তা বলাই বাহুল্য।

Loading...