বাড়ি কলকাতা চিট ফান্ডে টাকা ফেরতের দাবি, বুধবার শিয়ালদহ থেকে নিজাম প্যালেস পর্যন্ত মিছিল

চিট ফান্ডে টাকা ফেরতের দাবি, বুধবার শিয়ালদহ থেকে নিজাম প্যালেস পর্যন্ত মিছিল

1123
0

কলকাতা, ১৯ ডিসেম্বর: চিট ফান্ডের সঙ্গে যুক্ত এজেন্টরা বুধবার দুপুরে মিছিল করবেন কলকাতায়। প্রতারিতদের টাকা ফেরৎ দেওয়ার দাবিতে ডাকা এই মিছিলে থাকবেন সিপিএমের পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তী। দু’দিন আগে একই দাবিতে রাজ্যপাল কেশরী নাথ ত্রিপাঠির কাছে স্মারকলিপি দিয়েছে রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব। চিট ফান্ডের অর্থ নিয়ে শীঘ্রই রাজ্যের বিরুদ্ধে জনস্বার্থের মামলা করছেন ক্ষতিগ্রস্তরা। চিট ফান্ডের কত অর্থ রাজ্য সরকারের কাছে জমা আছে, তা প্রকাশ্যে জানানোর দাবি করেছে অল বেঙ্গল চিট ফান্ড সাফারার ওয়েলফেয়ার অর্গানাইজেশন। সংগঠনের তরফে লাগাতার আন্দোলনের ডাকও দেওয়া হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে এ দিন মিছিল যাবে শিয়ালদহ থেকে নিজাম প্যালেস পর্যন্ত। 
এ রাজ্য-সহ গোটা দেশে চিটফান্ড কোম্পানির মাধ্যমে রাজ্যে চার লক্ষ কোটি টাকা লুঠ হয়েছে। এই অভিযোগ করে সংগঠনের রাজ্য সভাপতি রূপম চৌধুরী জানান, বহুবার আমরা প্রশাসনের নানা স্তরে এ নিয়ে আবেদন-নিবেদন করেছি। চার বছর ধরে ব্লক, জেলা ও রাজ্য স্তরে আন্দোলন করা সত্বেও সরকার যথাযথ পদক্ষেপ নেয়নি। এর প্রতিবাদে সাংসদ-বিধায়কদের কাছে স্মারকলিপি দেওয়া ছাড়াও ২১ ডিসেম্বর বেলা ১২টা থেকে এক ঘন্টা রাজ্যে রেল অবরোধ করা হবে। ১৩ ডিসেম্বর এই সংগঠনের তরফে কেন্দ্রীয় সরকারের দফতর ঘেরাও করা হয়। এদিকে, কলকাতা হাইকোর্ট নিযুক্ত বিচারপতি এসপি তালুকদার কমিটির ওয়েবসাইট দিন তিনেক আগে চালু হয়েছে। চিটফান্ড কেলেঙ্কারিতে ক্ষতিগ্রস্তদের স্বার্থে এই ওয়েবসাইট চালু করার কথা ছিল। কিন্তু, দীর্ঘ সময় পেরিয়ে গেলেও তা কার্যকর না হওয়ায় পূর্ব শুনানির দিন রাজ্যের শীর্ষ আদালত মুখ্যসচিবকে তলব করে। তাঁর আদালতে হাজিরার কয়েক ঘণ্টা আগে চালু করে দেওয়া হয় এটি। ওয়েবসাইটটির ঠিকানা হল, www.justicesptalukdarcommittee.com। রোজ ভ্যালি-কাণ্ডের তদন্ত সূত্রে এনফোর্সমেন্ট ডিপার্টমেন্ট ১৫০০-১৬০০ কোটি টাকা বাজেয়াপ্ত করেছে। এই অর্থ অ্যাসেট ডিসপোজাল কমিটিকে হস্তান্তর করা হলে তা ক্ষতিগ্রস্তদের দেওয়ার জন্য বিচারপতি এস পি তালুকদার কমিটি সিদ্ধান্ত নিতে পারবে। বেঞ্চ এই আবেদন মঞ্জুর করে নির্দেশ জারি করেছে। রোজ ভ্যালিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের তরফে আইনজীবী অরিন্দম দাশ জানিয়েছেন, অ্যাসেট ডিসপোজাল কমিটিকে একটি ঘর দেওয়ার কথা ছিল রাজ্য সরকারের। কিন্তু, এখনও পর্যন্ত তা কার্যকর হয়নি। বিচারপতি জয়মাল্য বাগচি’র নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ আগামী ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যে সেই জায়গার ব্যবস্থা করে দেওয়ার জন্য রাজ্যকে নির্দেশ দিয়েছে।
অন্য দিকে, ওড়িশায় রোজভ্যালিকাণ্ড সূত্রে যেসব সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত হয়েছে, তার নিলাম প্রক্রিয়া শুরু করেছে সেখানকার রাজ্য সরকার। আদালত জানিয়ে দিয়েছে, ওই রাজ্যের ক্ষেত্রে এই হাইকোর্টের হস্তক্ষেপ করার সুযোগ নেই। পাশাপাশি আদালত এটাও জানিয়েছে, আগামী নতুন বছরে প্রতি মঙ্গল ও বুধবার বেলা তিনটে থেকে চিটফান্ড মামলাগুলির শুনানি হবে।
চিট ফান্ডের ৪২টি সংস্থাকে লগ্নিকারীদের টাকা ফেরৎ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল। কিন্তু এ ব্যাপারে কাজ হয়নি রাজ্যের চূড়ান্ত অসহযোগিতার জন্য। এই অভিযোগ করে রূপমবাবু বলেন, অ্যালকেমিস্ট টাকা দেওয়া শুরু করলেও ৭৩৩ জনকে দেওয়ার পরে বন্ধ করে দেয়। বর্তমান রাজ্য সরকারের একটা বিরাট অংশ ভাগ পেয়েছেন। 
সংগঠনের অন্যতম নেত্রী অমিতা বাগ অভিযোগ করেন, চিট ফান্ডে প্রতারিতদের স্বস্তি দিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৫০০ কোটি বরাদ্দ করলেও ১৩৯ কোটি বিলি করে বন্ধ করে দেওয়া হয়। বিচারাধীন অজুহাত দেখিয়ে প্রায় সাড়ে চার বছর এই টাকা দেওয়া বন্ধ রাখা হয়েছে। অথচ ওডিশায় ক্ষুদ্র আমানতকারীরা চিট ফান্ডে তাঁদের প্রাপ্য পেয়েছেন।

Loading...