বাড়ি Uncategorized গ্রামের অর্থনীতিকে বাঁচাতে নতুন দাওয়াই ব্যবসায়ির

গ্রামের অর্থনীতিকে বাঁচাতে নতুন দাওয়াই ব্যবসায়ির

75
0

গ্রামের এই ব্যবসায়ির হাত ধরেই বাঁচবে আগামী দিনে গ্রামবাসীরা। তাঁর অর্থনীতির দিকেই তাকিয়ে রয়েছে বর্ধমান। বাংলার যুবকদের ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্ন দেখাচ্ছেন, গ্রামের এক ব্যবসায়ি। জীবনের প্রথম দিকে তিনি চাষবাস দিয়ে শুরু করে ছিলেন জীবনে এগিয়ে যাওয়া। শালপাতার ব্যবসা পরে বাবার সঙ্গে হাত লাগিয়ে দীর্ঘদিন চালিয়েছেন বাবার কুটিভানার ব্যবসা। তাতেও দমে যাননি তিনি! বরং তিনি আউশগ্রামের এই প্রজন্মের মুখ হয়ে উঠেছেন। ধীরে ধীরে তিনি, আজকে পূর্ব বর্ধমানের নতুন ব্যবসায়িদের কাছে প্রেরণা হয়ে উঠেছেন। তিনি সেখ আব্দুল লালন। তিনি নিজের উদ্যোগেই আজ হয়ে উঠেছেন এক প্রতিষ্ঠান। তিনি জীবনের দীর্ঘ লড়াইয়ে গড়ে তুলেছেন এ নিজের তৈরি প্রতিষ্ঠান এস এম ডি ট্রান্সপোর্ট, সেই সঙ্গে নিজের ছেলের নামে গড়ে তুলেছেন সঞ্জু ট্রায়ার এণ্ড সঞ্জু হার্ডওয়্যার। আজ গোটা জেলা শুধু নয়, গোটা রাজ্যেই তার ব্যবসায়িক পরিধি বেড়েছে দিন দিন। বাংলা সিনেমার জগতে প্রোডাকশন হাউস থেকে শুরু করে, কনস্ট্রাকশন প্রাইভেট লিমিটেডসহ পণ্য পরিবহনের জন্য তার গাড়ি ছুটছে রাজ্যের বাইরেও। একক উদ্যোগে গড়ে তুলেছেন, গ্রামীণ অর্থনীতির আবহে কৃষিকাজের নিজস্ব ফার্ম। তাতেই কয়েক হাজার ছেলেমেয়েদের জন্য তিনি করে দিয়েছেন কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা। তারা প্রত্যেকেই তাঁর ব্যবসায়িক কার্যক্রমের সঙ্গে জড়িয়ে গ্রামীণ অর্থনীতির ভিত্তিকে আরও শক্তিশালী করে তুলেছে।গ্রামে গ্রামে অল্প পয়সায় ফলের গাছ লাগানো, সেই সঙ্গে তার পরিচর্যা করে গাছটিকে টিকিয়ে রেখে, আয়ের উৎস খোঁজা। সেই সঙ্গে গ্রামীণ মানুষকে দিয়ে পশুপালন করানো। তাঁর এলাকায় আউশগ্রামের গ্রামে গ্রামে আজ সেখ আব্দুল লালনের উদ্যোগেই প্রতিষ্ঠিত হয়েছে সুলভ শৌচাগার, পাকা রাস্তা নির্মাণের কাজ। সেই সঙ্গে বেশ কয়েক হাজার ছেলেমেয়েদের হাতে প্রতি বছর তিনি তুলে দেন পড়াশুনোর জন্য বিশেষ বৃত্তির টাকা। হতদরিদ্র পরিবারের সদস্যদের খাদ্য, বাসস্থান এবং চিকিৎসা খরচও নিয়মিত তাঁর উদ্যোগে তুলে দেওয়া হয়। এবছর তাঁর গ্রামীণ অর্থনীতিকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে, প্রতি পরিবার পিছু দুশো করে ফলের গাছ লাগিয়ে দিয়ে সামাজিক ভাবে সাহায্য করছেন তিনি। তাঁর কথায় গ্রামের কৃষিজীবী মানুষের হাতে অর্থ পৌঁছে গেলেই, সার্বিক উন্নয়ন সম্ভব। তাই গ্রামীণ মানুষকে চাঙ্গা করতে হবে। সেই কাজেই ৪২ টি গ্রামকে দত্তক নিয়েছেন তিনি।

Loading...