বাড়ি রাজ্য বীরভূম করোনা আতঙ্কে আচমকা বন্ধ বিশ্বভারতীর কেন্দ্রীয় দফতর

করোনা আতঙ্কে আচমকা বন্ধ বিশ্বভারতীর কেন্দ্রীয় দফতর

63
0

শান্তিনিকেতন, ২৯ জুন : এক কর্মী জ্বর নিয়ে অফিস করেছেন। যদিও তিনি করোনা  আক্রান্ত কিনা, সে বিষয়ে নিশ্চিত নয় কেউই। তবে রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত করোনা সংক্রমণের আশঙ্কাও এড়ানো যাচ্ছে না। তাই আতঙ্কে বন্ধ করে দেওয়া হল বিশ্বভারতীর কেন্দ্রীয় অফিস। আজই ওই অফিস বিল্ডিং জীবাণুমুক্ত করার কাজ শুরু হয়েছে । তবে এই নিয়ে কোন বিঞ্জপ্তি বা নোটিশ না থাকায় ধন্দে কর্মী আধিকারিক সকলেই।
বিশ্বভারতী সূত্রে খবর, সরকারি নিয়ম মেনে কেন্দ্রীয় অফিসের বিভিন্ন দপ্তরে কাজকর্ম করছেন কর্মীরা। গত কয়েকদিন ধরে জ্বরে ভুগছিলেন এক কর্মী। রবিবারও তিনি জ্বর নিয়ে অফিসে আসেন। সহকর্মীর জ্বর দেখেই আতঙ্কিত হয়ে পড়েন অন্যান্য কর্মীরা। ওই ব্যক্তি করোনা আক্রান্ত নন তো, সেই নিয়ে শুরু হয় গুঞ্জন। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত নেয় ওই কর্মীর করোনা পরীক্ষা করানো হবে। এবং রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত কেন্দ্রীয় অফিস বন্ধ করে রাখা হবে। সেই অনুযায়ী সোমবার সকালেও খোলেনি বিশ্বভারতীর কেন্দ্রীয় দপ্তর। এদিন তাই সকাল থেকেই শুরু হয় কেন্দ্রীয় দপ্তরে জীবাণুমুক্তও করার কাজ ।তবে কোন বিঞ্জপ্তি ছাড়া অফিস বন্ধ করা নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়েছে বিশ্বভারতী তে। এই নিয়ে বিশ্বভারতীর কর্মী মন্ডলীর যুগ্ম সম্পাদক কিশোর ভট্টাচার্য বলেন, “বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ করোনা সংক্রমণ মোকাবিলায় প্রথম থেকেই তৎপর। আর কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পূর্ন রুপে খোলা হত না এই পরিস্থিতিতে। তাই পুরো অফিস খোলার আগে রুটিন স্যানিটাইজেশনের কাজ করা হচ্ছে।” 

Loading...