বাড়ি বিনোদন এবার কি মন্বন্তর দেখা দেবে : কৌশিক সেন

এবার কি মন্বন্তর দেখা দেবে : কৌশিক সেন

134
0

কলকাতা, ২৮ এপ্রিল : বাবা-মা শ্যামল-চিত্রা সেন, স্ত্রী-পুত্র রেশমি-ঋদ্ধি এবং নিজে, আদ্যোপান্ত নাটকের পরিবারের সদস্য কৌশিক সেন। তার চেয়েও বড় পরিচয়, প্রতিবাদের মুখ হিসাবে নিজের একটা স্বতন্ত্র ছবি তৈরি করেছেন জুলিয়েন ডে স্কুলের এই প্রাক্তনী। অভিনয়ে উৎকর্ষতার জন্য বিএফজেএ-সহ একাধিক মর্যাদার স্বীকৃতি পেয়েছেন। এম বাইপাস সংলগ্ন পূর্বালোকে চারতলা একটি আবাসনের টপ ফ্লোরে লকডাউনে বন্দী কৌশিকবাবু। মাসখানেকের ওপর হয়ে গেল এই জীবন। কেমন লাগছে? এই প্রতিবেদককে জানালেন, “আমাদের তো শুটিং-নির্ভর শৃঙ্খলাবদ্ধ জীবন। খুব অনিশ্চিত। এই তো লকডাউনের আগেও কৌশিক গাঙ্গুলীর আউটডোরে শুটিং চলছিল। প্রায় সর্বক্ষণ ক্যামেরার প্রয়োজন অনুযায়ী প্রস্তুত থাকতে হয়। স্ত্রী সিরিয়ালে কখনও কখনও ১৪ ঘন্টা দিনে পরিশ্রম করেন। কিন্তু এখন তো এ সব নেই।“ পরিবর্তে কী করছেন? কৌশিকবাবুর জবাব, “টিভি, নেটফ্লিক্স দেখছি। বেশ ক’টা অসামান্য ছবি এই সময়ে দেখলাম। সপরিবারে একসঙ্গে এতদিন আগে কাটাইনি।”গান শুনছেন? কৌশিকবাবুর জবাব, “আমি অতটা শুনছি না। তবে, স্ত্রী আর ছেলে প্রচুর শুনছে। আমি পড়াশোনা আর লেখাতেই সময়টা দিচ্ছি।“ কোন সমস্যা বেশি হচ্ছে? শ্বাশুড়ি সরসুনায় আর মা ভবানীপুর/হাজরায় থাকেন। দুজনেরই দেখাশোনার লোক আছে। তবে, ওঁদের ওষুধ-বাজার এগুলো আমাদের দিয়ে আসতে হয়। আগে ঘন ঘন যেতাম। এখন দু’সপ্তাহে একবার যাওয়ার অবকাশ পাচ্ছি।” লকডাউনের মেয়াদ কি বাড়ানো উচিত? কী মনে হয়? কৌশিক সেন বললেন, “কত লোক কী সাঙ্ঘাতিক পড়েছে। এটা কিন্তু ভেবে দেখতে হবে। প্রশ্ন উঠছে এবার কি মন্বন্তর দেখা দেবে? বেশিদিন এভাবে আটকে রাখলে তো মুস্কিল!“ কিন্তু লকডাউন তুলে দিন যে পরিণতি হবে, সেটাও কি স্বস্তিকর হবে? প্রশ্নের উত্তরে কৌশিকবাবুর জবাব, “না সেটাও তো ভেবে দেখার ব্যাপার!”

Loading...