বাড়ি কলকাতা আমার আর বাঁচতে ইচ্ছে করছে না, সমানে টার্গেট করা হচ্ছ— ...

আমার আর বাঁচতে ইচ্ছে করছে না, সমানে টার্গেট করা হচ্ছ— অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র

1105
0

কলকাতা, ২৭ মার্চ : আমার সাথে কেউ কথা বলে না। আর বাঁচতে ইচ্ছে করছে না। সমানে টার্গেট করা হচ্ছে। এই মন্তব্য করে ইউটিউবে কেঁদে ফেলেন অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র। ইউটিউবে বৃহস্পতিবার সকালে শ্রীলেখা গোড়াতেই বলেন, ‘হাই‘, ‘মর্নিং’— এসব বলবেন না। খুব চাপে আছি। নির্দিষ্ট প্রশ্ন থাকলে তবেই করবেন। আমরা সবাই প্রায় এক ধরনের একটি স্বেচ্ছানির্বাসনে আছি। খুব অসুবিধে হচ্ছে। হতে পারে আমি ওভার সেনসেটিভ। হতে পারে আমি বাড়াবাড়ি করছি। শ্রীলেখা বলেন, গত ২১ দিন আমি মেয়েকে ছেড়ে আছি। সঙ্গে তিনটি কুকুর ছানা আর বয়স্ক একজন মাসি। একমুঠো চালের গুরুত্ব কতটা জীবনে প্রথম হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছি। উপদ্রুত নম্বর হিসাবে যোগাযোগের যে নম্বরগুলি দেওয়া হয়েছিল ক্রমাগত রিং হয়ে যাচ্ছে। খুব অসহায় বোধ করছি। হাইপার সেনসিটিভ অথবা ওভারসেনসেটিভ হতে পারি। আমরা যারা মানুষ হিসাবে নিজের ভাবতে চাই, নর্মাল হিউম্যান বিইং হিসাবে আমাদের দেখি, রাশন করে চলতে হচ্ছে। শ্রীলেখা লিখেছেন, “ম্যাগি না খেয়ে প্রায় ২৩ টা কুকুর খাওয়াচ্ছি দু’বেলা। কিছু রাশনে টান ধরেছে। জানিনা কুকুরগুলোকে খাওয়াতে পারব কিনা। কারণ আমি যে কমপ্লেক্সে থাকি, সেটা কেবলই ভার্টিক্যাল বস্তি। আক্ষরিক অর্থে বড়লোকদের বস্তি। আমার সঙ্গে কেউ কথা বলে না। যারা মনে করে এই কমপ্লেক্সে এসেছি, এখানে কুকুর আসবে না, তাদের সঙ্গে আমি একেবারেই একমত নই। গত সেপ্টেম্বর অক্টোবর থেকে এই অবস্থায় আছি। সমানে টার্গেট করা হচ্ছে। কিভাবে অশান্তি দেবে। কিভাবে এই লড়াইয়ে জিতে যাবে।  শ্রীলেখা বলেন, নিজে ম্যাগী খেয়ে চালটা বাঁচিয়ে রাখি যাতে কুকুররা খেতে পারে। ব্রেকফাস্ট খাচ্ছি না। দুবেলা খেয়ে আছি। মনে মনে নিজেকে বোঝাচ্ছি এতে ডায়েট হচ্ছে। কিন্তু আসলে কুকুরগুলোকে যাতে খেতে দিতে পারি। যে বয়স্ক মাসি আমার সঙ্গে আছে গত ১৪ বছর ধরে ক্রমাগত পরিষেবা দিয়েছে তাঁকে তো খাবার থেকে বঞ্চিত করতে পারবোনা। দীর্ঘ অভিযোগে শ্রীলেখা বলেন, একজন সেলিব্রিটি আবার কী রান্না করছেন তার আপডেট দিচ্ছেন। তিনি আবার মেম্বার অফ পার্লামেন্ট। 

Loading...