বাড়ি দেশ আপাতত আস্থাভোট হচ্ছে না মধ্যপ্রদেশে, ২৬ মার্চ পর্যন্ত মুলতুবি বিধানসভা

আপাতত আস্থাভোট হচ্ছে না মধ্যপ্রদেশে, ২৬ মার্চ পর্যন্ত মুলতুবি বিধানসভা

41
0

ভোপাল, ১৬ মার্চ : আপাতত আস্থাভোট হচ্ছে না মধ্যপ্রদেশে| করোনাভাইরাস-আতঙ্কে আগামী ২৬ মার্চ পর্যন্ত মধ্যপ্রদেশ বিধানসভার বাজেট অধিবেশন মুলতুবি করে দিয়েছেন স্পিকার নর্মদাপ্রসাদ প্রজাপতি| ফলে, সাময়িকের জন্য হলেও স্বস্তি পেল কমল নাথ সরকার| কিন্তু, মধ্যপ্রদেশ বিধানসভায় আস্থা ভোট চেয়ে, সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)|

২৩০ আসনের মধ্যপ্রদেশ বিধানসভায় মোট বিধায়ক সংখ্যা ২২৮| সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে ১১৫ জন বিধায়কের সমর্থন দরকার কোনও দলের| ৪ জন নির্দল বিধায়ক, ২ জন বহুজন সমাজ পার্টির বিধায়ক এবং একজন সমাজবাদী পার্টির বিধায়কের সমর্থনে এত দিন মধ্যপ্রদেশে ১২১টি আসন ছিল কংগ্রেসের দখলে| সম্প্রতি ২২ জন বিদ্রোহী-বিধায়ক ইস্তফা দেওয়ার পর কংগ্রেসের আসন সংখ্যা এসে দাঁড়িয়েছে ৯৯-এ| নির্দল, বসপা ও সপা কংগ্রেসের উপর থেকে সমর্থন তুলে নিলে সেক্ষেত্রে কংগ্রেসের পক্ষে থাকা বিধায়কের সংখ্যা দাঁড়াবে ৯১-এ| বিজেপির কাছে যেহেতু ১০৭ জন বিধায়ক রয়েছে, তাই আস্থা ভোট হলে কোনও বাধাই থাকবে না বিজেপির| তাই মধ্যপ্রদেশে আস্থা ভোটের দাবি জানাচ্ছে বিজেপি|

আস্থা ভোট নিয়ে জল্পনার মধ্যেই সোমবার সকালে বিধানসভায় আসেন মধ্যপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান-সহ অন্যান্য বিজেপি বিধায়করা| বিধানসভায় আসেন মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথ এবং কংগ্রেস বিধায়করাও| আস্থা ভোট নিয়ে জল্পনার প্রেক্ষিতে রাজ্যপাল লালজি ট্যান্ডনকে চিঠি লিখে মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথ আবেদন জানান, ‘আশা রাখছি যথাযথ পদ্ধতি এবং সংবিধান অনুসরণ করা হবে|’ বিধানসভায় রাজ্যপাল জানান, ‘মধ্যপ্রদেশের মর্যদা যাতে অক্ষুণ্ণ থাকে, তাই সংবিধানের অধীনে সকলকে অবশ্যই আইন মেনে চলতে হবে|’ পরে বিধানসভার অধিবেশন থেকে বেরিয়ে যান রাজ্যপাল| তারপরই করোনাভাইরাসের প্রেক্ষিতে ২৬ মার্চ পর্যন্ত মুলতুবি হয়ে যায় মধ্যপ্রদেশ বিধানসভার অধিবেশন|

তবে, হাল ছাড়তে নারাজ বিজেপি নেতৃত্ব| মধ্যপ্রদেশ বিধানসভায় আস্থা ভোট চেয়ে সুপ্রিম কোর্টের শরণাপন্ন হয়েছে বিজেপি| এমনকি রাজ্যপাল লালজি ট্যান্ডনের সঙ্গে দেখা করে মধ্যপ্রদেশ বিধানসভায় যত শীঘ্র সম্ভব আস্থা ভোটের অনুরোধ জানিয়েছেন বিজেপি বিধায়করা| রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করে শিবরাজ সিং চৌহান বলেছেন, ‘সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারিয়েছে সরকার, তাই ক্ষমতায় থাকার কোনও অধিকার নেই|’ রাজ্যপাল জানান, ‘উপযুক্ত পদক্ষেপ নেওয়া হবে| আমি আশ্বাস দিচ্ছি, আপনাদের অধিকার কেউ লঙ্ঘন করতে পারবে না|’

Loading...