বাড়ি কলকাতা অবৈধভাবে জলাশয় ভরাট রুখতে মোবাইল অ্যাপ চালু করছে কলকাতা পুরসভা

অবৈধভাবে জলাশয় ভরাট রুখতে মোবাইল অ্যাপ চালু করছে কলকাতা পুরসভা

127
0


কলকাতা, ৩০ অক্টোবর : শহরের জলাশয়গুলির অবৈধভাবে ভরাট রুখতে এবার মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে নজরদারি চালাবে কলকাতা পুরসভা| ইতিমধ্যেই এই বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর সরকারি কর্মকর্তাদের অবৈধভাবে জলাশয়  ভরাট করার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়ার এবং জল সংরক্ষণ করার নির্দেশ দিয়েছেন|

শহরে যত্রতত্র পুকুর, জলাশয়কে বুজিয়ে অবৈধ নির্মান গড়ে উঠছে| এই নিয়ে ভুরি ভুরি অভিযোগ জমা পড়েছে কলকাতা পুরসভার কাছে| এমনকি ‘টক টু মেয়র’ অনুষ্ঠানেও গত আগস্ট মাসে বেহালার ঠাকুরপুকুরের ১২৪ ওয়ার্ডের এক বাসিন্দা  জলাশয় ভরাট করার অভিযোগ জানান| এই প্রসঙ্গে পরিবেশ ও বস্তি উন্নয়ন বিভাগের মেয়র পারিষদ স্বপন সমাদ্দার বলেন, “আমরা একটি মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন নিয়ে আসার চিন্তা ভাবনা করছি| সেই প্রক্রিয়াও শুরু হয়ে গেছে| এর ফলে এই অ্যাপ্লিকেশনের মধ্যে শহরে সমস্ত জলাশয়ের একটি ডাটাবেস থাকবে। এতে কোনও পুকুর অবৈধভাবে ভরাট হচ্ছে কিনা তা পর্যবেক্ষণ দ্রুত নজরে আসবে|”

পরিবেশের ভারসাম্য বজায় রাখার জন্য জলাশয় সংরক্ষণের প্রয়োজনীয়তার উপর জোর দিয়েছে কলকাতা পুরসভা| সেই কারণে জলাশয় ভরাট করে সেই জমির উপর কোনও বিল্ডিং নির্মানের আবেদনকে অনুমতি দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছে কলকাতা মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন।

ইতিমধ্যেই শহরে ১৫০০টি পুকুর সংস্কার করেছে পুরসভার কর্মীরা| পাশপাশি ঐসব জায়গায় পুর আইন অনুসারে ৪৯৬এ  ধারা প্রয়োগ করে কিছু পুকুরের দেখাশোনার দায়িত্ব নিয়েছে পুরসভা কর্তৃপক্ষ| এই কথা জানিয়ে স্বপনবাবু জানান, “আমরা নবীন প্রজন্মদেরও জলাশয়ে মাছ চাষ করতে উত্সাহিত করছি যাতে জল পরিষ্কার থাকে| জলে মশা জন্মাতে না পারে। এছাড়াও অক্সিজেন সরবরাহের ক্ষেত্রে জলাশয়ের গুরুত্বপূর্ন ভুমিকা রয়েছে| সে দিকটা মাথায় রেখেও পুকুরে জঞ্জাল নিক্ষেপ করতে বারণ করা হয়েছে সংশ্লিষ্ট এলাকার বাসিন্দাদের|

সম্প্রতি মেয়র ফিরহাদ হাকিম কেএমসির পরিবেশ বিভাগকে শহরের পরিবেশ ও ঐতিহ্য সংরক্ষণের জন্য বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেওয়ার অনুমোদন দিয়েছেন। পুরসভার পরিবেশ বিভাগের সাথে ঐতিহ্যর বিষয়টিকে যুক্ত করা হয়েছে। এই বিষয়ে স্বপন সমাদ্দার জানিয়েছে, “আমরা আপাতত অস্থায়ী পরিবেশবিদদের সাথে কাজ শুরু করব| পরে এই প্রস্তাব পাশ হলে এবং স্থায়ী পদে পরিবেশবিদ নিয়োগ করা হবে|”

জলাশয় পর্যবেক্ষণ এবং অবৈধ ভরাট রুখতে কলকাতা পুরসভা ইতিমধ্যেই প্রতিটি বরোতে একজন করে নোডাল অফিসার মনোনীত করেছে। এই নোডাল অফিসারদের সাহায্যের জন্য কার্যনির্বাহী ইঞ্জিনিয়ার এবং মূল্যায়ন বিভাগের আধিকারিকদের নিয়োগ করা হয়েছে|

Loading...