বাড়ি রাজ্য অবশেষে শাসনের গলাকাটা দেহের শনাক্ত করলো পরিবার

অবশেষে শাসনের গলাকাটা দেহের শনাক্ত করলো পরিবার

296
0



উত্তর ২৪ পরগনার শাসন থানার অন্তর্গত রেল লাইনের ধারে ২৩ বছরের যুবতীর মুন্ডহীন দেহ পাওয়া গিয়েছিল ১০ দিন আগে। তারপর থেকে মৃতদেহটি শনাক্ত করা যাচ্ছিল না। তারপর খোঁজ খবর পাওয়ার পর অবশেষে মিলে যায় যুবতীর ঠিকানা। বসিরহাট মহকুমার হাড়োয়া থানার শালিপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের দক্ষিণ হরিপুর গ্রামের বাসিন্দা ২৩বছরের ফরিদা খাতুন। সে ১০ দিন আগে ব্যাঙ্কে টাকা তুলতে যাচ্ছি বলে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যায়। এবং তারপর থেকে তার খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। দুদিন পরে শাসনের একটি রেল লাইনের ধারে যুবতীর দেহ পাওয়া গিয়েছিল। ঘটনায় শাসন এলাকায়  চাঞ্চল্য ছড়িয়ে ছিল। পুলিশ শনাক্ত করতে পারছিল না। অবশেষে যুবতীর পায়ের একটি চিহ্ন দেখে যুবতীর পরিবার যুবতীর মুণ্ডহীন দেহ শনাক্ত করেন বারাসাত জেলা হাসপাতালে মর্গ থেকে। যুবতীর বাবা খলিল মোল্লার অভিযোগ তার মেয়েকে ধর্ষণ করে হাত-পা ভেঙে অবশেষে  মুণ্ড আলাদা করে দেওয়া হয়েছে। যুবতীর কাটা মুন্ডুর হদিশ এখনও পর্যন্ত মেলেনি। ঘটনায় দক্ষিণ হরিপুর গ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। পরিবার সূত্রে জানা যায় ২৩বছরের ফরিদা খাতুন বিবাহিত ছিল এবং তার একটি তিন বছরের পুত্র সন্তান রয়েছে।

Loading...