বাড়ি কলকাতা রবীন্দ্র সরোবরকে রক্ষার স্বার্থে বিক্ষোভ-প্রতিবাদ, অংশ নিলেন

রবীন্দ্র সরোবরকে রক্ষার স্বার্থে বিক্ষোভ-প্রতিবাদ, অংশ নিলেন

305
0

প্রাতঃভ্রমণকারীরাওকলকাতা, ৬ নভেম্বর : রবীন্দ্র সরোবরকে রক্ষা করার দাবিতে বুধবার সাতসকালে পশ্চিমবঙ্গ বিজ্ঞান মঞ্চের সমর্থকরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করলেন। বিক্ষোভ অংশ নিলেন স্থানীয় প্রাতঃভ্রমণকারীরাও। গত সোমবার রবীন্দ্র সরোবরের জলে কচ্ছপ ও মাছের মৃতদেহ ভেসে ওঠে। রোইং ক্লাবের কাছে যেখানে কামান রাখা আছে, ১২টি মাছ এবং বিরল প্রজাতির একটি কচ্ছপের দেহ সেখানে ভাসতে দেখা যায়। এ প্রসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গ বিজ্ঞান মঞ্চ, কলকাতার সম্পাদক শেখ সলোমন বলেন, “রবীন্দ্র সরোবরের মত জাতীয় হ্রদকে রক্ষার ব্যাপারে প্রশাসনিক উদাসীনতা কোনও ভাবে মেনে নেওয়া যায় না। এ ব্যাপারে সমাজের সর্ব স্তরের মানুষ এক হোন।” লেক লাভার্স ফোরামের বরিষ্ঠ সদস্য তথা পরিবেশ কর্মী সুমিতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‘যত রকম ভাবে দূষণ হতে পারে, হয়েছে। এর প্রতিবাদে ফের পরিবেশ আদালতে মামলা করব।’’ এ দিন সকালে তিনিও ছিলেন বিজ্ঞান মঞ্চের বিক্ষোভ সমাবেশে।বুধবার বিক্ষোভকাকারীরা অভিযোগ করেন, দূষণবিধি ভঙ্গ করে সরোবরের জলে ছট পুজোর আয়োজন করাতেই এই অবস্থা হয়েছে। পরিবেশবিদ তথা লেক লাভার্স ফোরামের সদস্য সোমেন্দ্রমোহন ঘোষ ‘হিন্দুস্থান সমাচার’-কে বলেন, গত ১৪ অক্টোবর রাজ্য সরকারকে গ্রিন বেঞ্চ নির্দেশ দিয়েছিল সরোবরের দূষণ নিয়ন্ত্রণের জন্য যথোপযুক্ত ব্যবস্থা নিয়ে বিজ্ঞপ্তি দিতে। আমরা খবর পেয়েছি এ ব্যাপারে আদালত প্রশাসনের কাছে যথাসময়ে কৈফিয়ৎ চাইবে। জাতীয় পরিবেশ আদালতের নির্দেশ নিয়ে প্রচার মাধ্যমে লেখালেখি এবং পরিবর্ত প্রশাসনিক ব্যবস্থা সত্বেও শনিবার ও রবিবার রবীন্দ্র সরোবরের জলে ছটপুজোর উপাচার ফেলা হয়। পুলিশের সামনে দিয়েই ছটপুজোর জনতা অবাধে সরোবরের ভিতরে ঢোকে। বাজিও পোড়ানো হয়ে। কেন কোনও কড়াকড়ি করা হল না, তা নিয়ে বুধবার জমায়েতে প্রশ্ন তোলেন বিজ্ঞান মঞ্চের সমর্থক ও প্রাতঃভ্রমণকারীরা। এদিন বিক্ষোভকারীদের হাতে ছিল ব্যানার এবং প্রচার সম্বলিত নানা পোস্টার। তাতে লেখা ছিল ‘জাতীয় সবুজ বেঞ্চের নির্দেশ মেনে চলুন‘, ‘রবীন্দ্র সরোবরকে রক্ষা করুন’, ‘যথা তথা পাতলা প্লাস্টিক ফেলবেন না’, ‘তেল ঘি দুধ জল নয়’, ‘জলাশয় রক্ষা করুন’, ‘জীববৈচিত্র্য রক্ষা করুন’, ‘জলাশয় প্রাকৃতিক কিডনি’, ‘প্রতিরোধ করো বিশ্ব উষ্ণায়ন’ প্রভৃতি’।

Loading...