বাড়ি দেশ ভিন্নমত দু’জন বিচারপতির, সুপ্রিম কোর্টের বৃহত্তম বেঞ্চে গেল শবরীমালা মামলা

ভিন্নমত দু’জন বিচারপতির, সুপ্রিম কোর্টের বৃহত্তম বেঞ্চে গেল শবরীমালা মামলা

46
0

নয়াদিল্লি, ১৪ নভেম্বর : আস্থা-বিশ্বাস অথবা ধর্মীয় আচার নয়| শবরীমালা নিয়ে ২০১৮ সালের ২৮ সেপ্টেম্বরের রায়ে সুপ্রিম কোর্ট গুরুত্ব দিয়েছিল নারী-পুরুষের সমানাধিকারকে| পুরনো প্রথা ভেঙে শবরীমালার দরজা মহিলাদের জন্য খুলে দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট| ২০১৮-র ২৮ সেপ্টেম্বর সুপ্রিম কোর্টের তত্কালীন প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রর নেতৃত্বাধীন পাঁচ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ শবরীমালার দরজা ১০ থেকে ৫০ বছর বয়সি মহিলাদের জন্য খুলে দিয়েছিল| সেই রায় পুনর্বিবেচনার জন্য প্রায় ৫০টি আর্জি জমা পড়েছিল সুপ্রিম কোর্টে| বর্তমান প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বে পাঁচজন বিচারপতির বেঞ্চে সেই সব আর্জির শুনানি হয় দীর্ঘ দিন ধরে| কিন্তু, শবরীমালা মন্দিরে ১০-৫০ বছর বয়সি মহিলাদের প্রবেশাধিকারের ক্ষেত্রে ঐক্যমত্যে পৌঁছতে পারলেন না সুপ্রিম কোর্টের দু’জন বিচারপতি| তাই শবরীমালা মামলা গেল ৭ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চে|

বৃহস্পতিবার শবরীমালা নিয়ে পুনর্বিবেচনার আর্জির শুনানিতে প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ বলেছেন, ‘উপাসনা স্থানে মহিলাদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা শুধুমাত্র এই মন্দিরের ক্ষেত্রেই সীমাবদ্ধ নয়, মসজিদ এবং পার্সি মন্দিরেও মহিলাদের প্রবেশের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে|’ বিচারপতি রোহিনটন ফলি নরিম্যান এবং ডি ওয়াই চন্দ্রচূড় ভিন্নমত পোষণ করায় শীর্ষ আদালতের বৃহত্তম সাংবিধানিক বেঞ্চের (৭ জন বিচারপতির বেঞ্চ) কাছে পাঠানো হয়েছে শবরীমালা মন্দির মামলা| 

কেরলের শবরীমালা মন্দিরে ১০ বছরের কম এবং ৫০ বছরের উর্ধ্বে অর্থাত্ ঋতুমতী মহিলাদের প্রবেশাধিকার ছিল না| শতাব্দী প্রাচীন এই প্রথা তুলে দিয়ে সব বয়সের মহিলাদের প্রবেশাধিকার দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট| ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরের সেই ঐতিহাসিক রায়ের বিরুদ্ধে শীর্ষ আদালতেই রিট পিটিশন দাখিল করেছিলেন মন্দিরের পরিচালন কর্তৃপক্ষ-ত্রিবাঙ্কুর দেবস্থানম বোর্ড| বোর্ডের দাবি ছিল-সাধারণ মানুষের শতাব্দী প্রাচীন প্রথা বা বিশ্বাসে হস্তক্ষেপ করতে পারে না আদালত| তাই রায় পুনর্বিবেচনা করা হোক| সেই রায় পুনর্বিবেচনায় বৃহস্পতিবার ঐক্যমত্যে পেঁৗছতে পারলেন না সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিরা| দু’জন বিচারপতি ভিন্নমত পোষণ করায়, বাকি তিনজন বিচরাপতির সংখ্যাগরিষ্ঠতায় শীর্ষ আদালতের বৃহত্তম সাংবিধানিক বেঞ্চের (৭ জন বিচারপতির বেঞ্চ) কাছে পাঠানো হয়েছে শবরীমালা মন্দির মামলা| তবে, ২০১৮ সালের ২৮ সেপ্টেম্বরের রায় স্থগিত করা হয়নি|

Loading...