বাড়ি খেলা প্রয়াত মোহনবাগানের প্রাক্তন সচিব অঞ্জন মিত্র, শোকের ছায়া বাংলার ক্রীড়ামহলে

প্রয়াত মোহনবাগানের প্রাক্তন সচিব অঞ্জন মিত্র, শোকের ছায়া বাংলার ক্রীড়ামহলে

44
0


কলকাতা, ৮ নভেম্বর : দীর্ঘদিন ধরে শারীরিক অসুস্থতায় ভুগছিলেন। শুক্রবার ভোর রাত ৩.১০ মিনিটে থেমে গেল তাঁর লড়াই। বাইপাসের ধারের একটি বেসরকারি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন মোহনবাগানের প্রাক্তন সচিব তথা কিংবদন্তি ফুটবলার অঞ্জন মিত্র। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৩ বছর। অঞ্জন মিত্রর প্রয়াণে গভীর শোকের ছায়া বাংলার ক্রীড়ামহলে। দীর্ঘ কয়েক বছর ধরেই রোগে ভুগছিলেন অঞ্জনবাবু, শুক্রবার ভোররাত ৩.১০ মিনিট নাগাদ ইএম বাইপাসের পাশে একটি বেসরকারি হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হয়।পরিবার সূত্রের খবর, হাসপাতাল থেকে প্রথমে সকালে অঞ্জন মিত্রের মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় ট্যাংরার বাসভবনে। সেখান থেকে ১২টা নাগাদ নিয়ে যাওয়ার কথা মোহনবাগান তাঁবুতে। সেখানেই তাঁকে শ্রদ্ধা জানাবে ক্রীড়ামহল। এরপর দুপুর ২.৩০ মিনিট নাগাদ কেওড়াতলা মহাশ্মশানে নিয়ে যাওয়া হবে। সাড়ে তিনটে নাগাদ হবে শেষকৃত্য। মোহনবাগান সূত্রের খবর, আকস্মিক এই দুঃসংবাদে শুক্রবার সকালে অনুশীলন বাতিল করা হয়।১৯৯৫ সালে মোহনবাগান ক্লাবের প্রশাসন পদে আসার পর বাংলার ফুটবলে আমুল পরিবর্তন হয়। প্রায় তিন দশক ধরে তিনি ক্লাবের প্রশাসনিক কাজ সামলান। এমনকি তাঁর হাত ধরেই বাগানে বিদেশী ফুটবলাররা আসেন। এরপর ২০১৮ সালে ক্লাব সচিব পদ থেকে সরে যান, তবে মোহনবাগানের সঙ্গ ছাড়েননি। এমনকি অসুস্থ থাকলেও তিনি প্রায়শই ক্লাবে আসতেন। ফলে তাঁর মৃত্যু বাংলার ফুটবল জগতের একটা অধ্যায় শেষ হল। দীর্ঘ ২৩ বছর ক্লাব প্রশাসনে যুক্ত ছিলেন। ১৯৯৫ সালে মোহনবাগান ক্লাবের প্রশাসনে আসেন তিনি। অর্থ সচিব হিসেবে পথচলা শুরু করেছিলেন অঞ্জনবাবু। পরে ক্লাবের সচিব হন। মোহনবাগানের অনেক উত্থান পতনের সাক্ষী তিনি। তাঁর এবং বর্তমান ক্লাব সচিব টুটু বসুর বন্ধুত্ব কলকাতা ময়দানে মিথে পরিণত হয়েছিল। তাঁর সময়ে মোহনবাগান আই লিগ-সহ দেশের সেরা সব ফুটবল টুর্নামেন্ট জেতে। ২০১৮ সালে প্রশাসক হিসেবে বিদায় নেন অঞ্জনবাবু। শেষের দিকে অসুস্থতার জন্য সে ভাবে আর ক্লাবে আসতেও পারতেন না। 

Loading...