বাড়ি রাজ্য তৃণমূলকে টেক্কা, পুজোর উদ্বোধনে ভালোই সাড়া পাচ্ছেন রাজ্যের বিজেপি নেতারা

তৃণমূলকে টেক্কা, পুজোর উদ্বোধনে ভালোই সাড়া পাচ্ছেন রাজ্যের বিজেপি নেতারা

1778
0


কলকাতা, ২ অক্টোবর : দূর্গা পুজোর ব্যাপারে রাজ্যের শাসক দলের বিরুদ্ধে মঙ্গলবারই কলকাতায় এসে একহাত নিয়ে গিয়েছেন বিজেপি-র সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। দিল্লি যাওয়ার আগে সোমবার রাতে তিনি দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে সঙ্গে নিয়ে সল্টলেকের একটি পুজোর উদ্বোধন করেন। এরপর বুধবার বিভিন্ন জায়গায় রাজ্যের বিজেপি নেতৃবৃন্দ দুর্গাপুজোর উদ্বোধনে যাচ্ছেন। সূত্রের খবর, প্রায় দেড় মাস আগেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বাংলার সাংসদদের নির্দেশ দেন দুর্গাপুজোর সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক তৈরির। সেই হিসাবে দক্ষিণ কলকাতায় ভবানীপুরের নামী ক্লাব ‘সঙ্ঘশ্রী’-তে অমিত শাহকে আনতে উদ্যোগী হন সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু। বিষয়টি নিয়ে নানা ভাবে জল ঘোলা হয়। অভিযোগ, তৃণমূল নেতৃত্বের আপত্তিতে উদ্যোক্তারা পিছিয়ে যান।রাজ্য সভাপতির আজকের পুজোর উদ্বোধন বা উপস্থিতি শুরু হচ্ছে বেলা দুটোয়, শেঠপুর মোড়ে চন্দননগরের ৮৭ বছরের নবগ্রাম সার্বজনীন দুর্গোৎসব দিয়ে। এর পর তিনি যাবেন ভদ্রেশ্বর (ওয়ার্ড ২২) বিশালাক্ষী স্পোর্টিং ক্লাব, চূঁচড়া মহামায়া মহিলা দুর্গাপুজো কমিটি, ব্যান্ডেল মেরি পার্ক সার্বজনীন (৬০ ফুট উঁচু প্রতিমা) দুর্গোৎসবে। সেখানে থাকবেন বেলুড় মঠের মহারাজা। চারটায় পিপুলপতি কদমতলা সার্বজনীন দুর্গোৎসব সমিতির রজত জয়ন্তী বর্ষের পুজোর উদ্বোধনের পর দিলীপবাবুর যাওয়ার কথা বড়বাজার আজাদ হিন্দ ক্লাবে। এর পর তাঁর সূচীতে আছে চূঁচড়ার পাঁচটি পুজো— শ্যামবাবু ঘাট পল্লী সাধারণ, কনকশাল্লি সার্বজনীন দুর্গোৎসব সমিতি (৭৫ বছর), বুড়োশিবতলা গড়গড়িপাড়া সার্বজনীন দুর্গোৎসব (নবারুণ সঙ্ঘ),  ৫২ বছরের পুজো ৩ নম্বর গেট সার্বজনীন দুর্গোৎসব (জাগরণী ক্লাব), মিয়ারবের পেয়ারাবাগান সার্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটির (উদয় সঙ্ঘ) পুজোয়। সওয়া দু’টোয় সায়ন্তন বসু উদ্বোধন করবেন জগন্নাথ তিওয়ারি রোডে দমদম শারদীয় সার্বজনীন দুর্গোৎসবের। পরে পাঁচটায় বাগবাজারে গোপীমোহন দত্ত লেন সাধারণ দুর্গোৎসবের পুজোর। সাতটায় যাবেন হাওড়ার বকুলতলায়। আজ ৪টায় যাদবপুরে সুলেখার মোড়ের পুজোয় বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে আসার কথা দলের আর এক রাজ্য সম্পাদক রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়ের। সঙ্গে থাকার কথা দলের দুই রাজ্য সম্পাদক তুষার কান্তি ঘোষ ও  তনুজা চক্রবর্তী, সাংস্কৃতিক সেলের আহ্বায়ক সুমন বন্দ্যোপাধ্যায়, রাজ্যের প্রচার সেলের সপ্তর্ষী চৌধুরী প্রমুখের। সন্ধ্যা ৭টায় রাজুবাবুর যাওয়ার কথা নাটাগড়, কদমতলা, পানিহাটিতে বস্ত্র বিরন অনুষ্ঠানে।

Loading...