বাড়ি কলকাতা ঘূর্ণিঝড়ে ‘বুলবুল’-এর জন্য ফের বৃষ্টির আশঙ্কা

ঘূর্ণিঝড়ে ‘বুলবুল’-এর জন্য ফের বৃষ্টির আশঙ্কা

28
0

কলকাতা, ৬ নভেম্বর : আন্দামান লাগোয়া পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরে ঘনীভূত নিম্নচাপ তৈরি হয়েছে। ফলে, সপ্তাহান্তে তৈরি হয়েছে বৃষ্টির আশঙ্কা।

মৌসম ভবনের পূর্বাভাস, আজকের মধ্যেই শক্তি বাড়িয়ে নিম্নচাপটি ঘূর্ণিঝড়ে (বুলবুল) পরিণত হবে। ঘূর্ণিঝড়ের সম্ভাব্য অভিমুখ থাকবে ওডিশা, বাংলা, বাংলাদেশ উপকূলের দিকে। তবে স্থলভাগের কোথায় বুলবুল আছড়ে পড়বে, তা এখনও স্পষ্ট নয়। আগামী ৪৮ ঘণ্টায় বুলবুলের প্রভাবে দক্ষিণবঙ্গের তিনটি জেলায় হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত হতে পারে। শুক্রবার থেকে দক্ষিণবঙ্গের আকাশ মেঘলা হতে শুরু করবে। শনিবার সকাল থেকেই রাজ্যের উপকূলবর্তী জেলাগুলিতে বৃষ্টি শুরু হবে। রবিবার বিকালের পর থেকে ধীরে ধীরে আবহাওয়ার উন্নতি হবে।
আলিপুর আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, বুলবুলের পরোক্ষ প্রভাবে শুক্রবার থেকেই কলকাতার আকাশ মেঘলা থাকবে। গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের জেলাগুলিতে হাল্কা বৃষ্টির সম্ভাবনা। শনিবার বৃষ্টি বাড়তে পারে। দুই ২৪ পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুরের এক-দু’জায়গায় ভারী বৃষ্টিও হতে পারে। রবিবার বিকালের পর থেকে ধীরে ধীরে পরিস্থিতির উন্নতি হবে।
আবহাওয়া দফতরের তরফে জানা গিয়েছে, শুক্রবার বুলবুল অবস্থান করতে পারে অন্ধ্র এবং ওড়িশা উপকূলের কাছাকাছি। শনিবার তা স্থলভাগের আরো কাছে চলে আসবে, ফলে তার তীব্রতা আরও বাড়তে পারে। ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’-এর প্রভাবে উত্তাল হবে সমুদ্র। মাঝ-সমুদ্রে ঘণ্টায় ১৫৫ কিলোমিটার বেগেও হাওয়া বইবে। ফলে চলতি সপ্তাহের শনিবার থেকে ম‍ৎসজীবীদের গভীর সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। এদিকে, আরো শক্তি সঞ্চয় করছে পূর্ব-মধ্য আরব সাগরে সৃষ্ট হয়েছে ঘূর্ণিঝড় ‘মহা’। বুধবার গভীর রাতে বা বৃহস্পতিবার ভোররাতে সেটি গুজরাত উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে। ঝড়ের গতি হতে পারে ঘণ্টায় ৯০ কিলোমিটার। ঝড়ের প্রভাব পড়তে পারে মহারাষ্ট্রের মুম্বই ও থানেতেও। মহা’র প্রভাবে ভারী বৃষ্টি হতে পারে গুজরাতের জুনাগড়, গির, সোমনাথ, আমরেলি, সুরাট, ভারুচ, আনন্দ, আহমেদাবাদ-সহ রাজ্যের একটি বিশাল এলাকায়।

Loading...