বাড়ি দেশ গান্ধীজীর জন্মজয়ন্তীতে পদযাত্রা শুরু সাংসদ আর কে সিনহার, শুভারম্ভ ‘গান্ধী সঙ্কল্প যাত্রা’-র

গান্ধীজীর জন্মজয়ন্তীতে পদযাত্রা শুরু সাংসদ আর কে সিনহার, শুভারম্ভ ‘গান্ধী সঙ্কল্প যাত্রা’-র

45
0

আরা (বিহার), ২ অক্টোবর : জাতির জনক মহাত্মা গান্ধীর ১৫০ তম জন্মজয়ন্তী উপলক্ষ্যে বিহারের পশ্চিম চম্পারণ জেলায় পদযাত্রা শুরু করলেন হিন্দুস্থান সমাচার সংবাদ সংস্থার চেয়ারম্যান তথা বিজেপির রাজ্যসভার সাংসদ রবীন্দ্র কিশোর সিনহা| মহাত্মা গান্ধীর ১৫০ তম জন্ম জয়ন্তী উপলক্ষ্যে বুধবার বিহারের পশ্চিম চম্পারণের বেতিয়া থেকে পদযাত্রা শুরু করেন সাংসদ আর কে সিনহা| ১৯১৭-১৮ সালের মধ্যে পশ্চিম চম্পারনের যে সমস্ত স্থানে গিয়েছিলেন মহাত্মা গান্ধী, ওই সমস্ত স্থানেই পদযাত্রা করবেন সাংসদ আর কে সিনহা| প্রবীণ বিজেপি নেতার কথায়, এই পুন্যভূমিই স্বাধীনতা আন্দোলনের সময় নতুন দিশা দেখিয়েছিল| বুধবার সকালে বেতিয়ার প্রসিদ্ধ হাজারীমাল ধর্মশালায় গান্ধীজীর জন্মজয়ন্তী উপলক্ষ্যে বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়| মহাত্মা গান্ধীর ছবিতে মাল্যদান করার পর প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করে ‘গান্ধী সঙ্কল্প যাত্রা’-র শুভারম্ভ করেছেন সাংসদ আর কে সিনহা| এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিহার বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা সাংসদ সঞ্জয় জয়সওয়াল, রাজ্য সহ-সভানেত্রী রেণু দেবী, বিধায়ক ভাগীরথী দেবী, প্রকাশ রায়, রাজেশ বর্মা, জেলা সভাপতি গঙ্গা প্রসাদ পাণ্ডে এবং প্রচুর সংখ্যক শহরবাসী| অনুষ্ঠানের শুরুতে ভোজপুরী লোকসঙ্গীতের মাধ্যমে এই বার্তা দেওয়া হয় যে, গান্ধীজীর রামরাজকে নিজ সু-রাজের নীতির দ্বারা স্বার্থক করছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী| এদিনের অনুষ্ঠানে সাংসদ আর কে সিনহা বলেছেন, ‘গান্ধীজীর মতাদর্শ আজও প্রাসঙ্গিক| ১০২ বছর আগে চম্পারণে এমন একজন ব্যক্তি এসেছিলেন, যিনি ভোজপুরী অথবা হিন্দিতে কথা বলতে পারতেন না| কিন্তু, কৃষকদের উপর অত্যাচারের প্রতিবাদ করার জন্য চম্পারণে এসেছিলেন মহাত্মা গান্ধী| মোহনদাস করমচাঁদ গান্ধীকে মহাত্মা বানিয়েছে চম্পারণ| চম্পারণ থেকেই সত্যাগ্রহ শুরু করেছিলেন গান্ধীজী| ব্রিটিশদের ভয় সত্ত্বেও গান্ধীজীকে স্বাগত জানাতে চম্পারণ এসেছিলেন জমিদার হাজারীমালজী| গান্ধীজীর সিদ্ধান্ত, সত্যাগ্রহ এবং অহিংসার সূত্রপাত হয়েছিল চম্পারণ থেকেই| সাংসদ আর কে সিনহা আরও বলেছেন, ‘শিক্ষা, স্বচ্ছতা এবং স্বনির্ভরতার মাধ্যমে দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতির পরিকল্পনা করেছিলেন গান্ধীজী| পদযাত্রাকে গান্ধীজীর রামরাজ এবং মোদীর সু-রাজ নাম দিয়ে সাংসদ আর কে সিনহা বলেছেন, ‘গান্ধীজীর চিন্তাধারার প্রচার-প্রসার এবং নরেন্দ্র মোদীর উন্নয়নকে মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়ার জন্য পদযাত্রা চলাকালীন সম্পর্ক তৈরি করা হবে|’ গান্ধীজীর পাশাপাশি প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী লাল বাহাদুর শাস্ত্রীরও জন্মবার্ষিকী পালিত হয়েছে বুধবার| গান্ধীজী এবং লালবাহাদুর শাস্ত্রীকে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পন করে সাংসদ আর কে সিনহা বলেছেন, ‘পুঁথিগত শিক্ষার অর্থ হল স্কিল ডেভেলপমেন্ট| গান্ধীজীর রাম রাজই হল মোদীজীর সু-রাজ| এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিহার বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা সাংসদ সঞ্জয় জয়সওয়ালও| তিনি চম্পারণ এবং বেতিয়ার পুন্যভূমির মহত্ব তুলে ধরেন| পদযাত্রায় অংশ নেন প্রচুর সংখ্যক বেতিয়ার নাগরিকবৃন্দ ও বিজেপি নেতা-কর্মীরা| 

Loading...