বাড়ি রাজ্য কৃষ্ণগঞ্জের রায় চৌধুরী বাড়ির পুজো আজও বাড়তি আকর্ষণ দর্শনার্থীদের কাছে

কৃষ্ণগঞ্জের রায় চৌধুরী বাড়ির পুজো আজও বাড়তি আকর্ষণ দর্শনার্থীদের কাছে

78
0

কৃষ্ণগঞ্জের রায়চৌধুরীর বাড়ির দ্বিভূজা আজও বড় আকর্ষণ। দেবাশীষ কংসবণিক, কৃষ্ণগঞ্জ। একদা বাংলাদেশের বর্ধিষ্ণু জমিদারদের মধ্যে তিনি ছিলেন অন্যতম। দেশভাগের পর বিনিময় প্রথা মেনে এ দেশে যা মিলেছিল, তাতে মন ভরেনি তার । তবু বন্ধ হয়ে যায়নি পরিবারের কৌলিন্য তথা বাঙালীর শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গা উৎসব। তদানীন্তন যশোরের বাড়ির জাঁকজমক বা আড়ম্বরের আজ কিছুই অবশিষ্ট নেই। তবে নিয়ম নীতিতে টান পড়তে দেননি কখনও। শিকড়ের স্মৃতি মিশে রয়েছে নদিয়ার কৃষ্ণগঞ্জের পাবালির রায়চৌধুরীদের দুর্গা আরাধনায়। শিকড়ের পুজো। যে শিকড় ছিল বাংলাদেশের যশোর জেলার মহেশপুর গ্রামে। জমিদারি বাড়িতেই হত পুজো। দেশভাগের দু’বছর পর নদিয়া কৃষ্ণগঞ্জে আসেন। সম্পত্তির বিনিময় হয়। কিন্তু ক্ষতি সামলানো যায়নি। তবে ভিটেমাটি ছেড়ে চলে আসলেও বন্ধ করেননি তাঁদের পারিবারিক পুজো। আজও দ্বিভূজা দুর্গার পুজো হয়ে আসছে নদিয়ার কৃষ্ণগঞ্জের রায়চৌধুরিদের বাড়িতে। দ্বিভূজা হলেও দুর্গার বাকি আটটা হাতও আছে। তবে আকারে ছোট। সেই কারণেই আড়াল রাখা হয়, প্রতিমার চুল ও অলঙ্কারের মধ্যে। এর সঠিক কারণ অবশ্য জানেন না পরিবারের কেউ-ই। তবে সম্ভবত কোন ঘটনায় হাত ভেঙে গিয়ে থাকতে পারে। সেই থেকে এই নিয়ম মানা কিংবা প্রতীকী ইঙ্গিত বলে জানালেন, রায় চৌধুরী বাড়ির বর্তমান প্রজন্ম। পঞ্চমীতে দেবীর বোধন দিয়ে শুরু হয় দেবীর আরাধনা। ষষ্ঠী থেকে নবমী পর্যন্ত হয় বিভিন্ন ধরণের ভোগ। এখানকার বিশেষত্ব ভাজা কলাইয়ের ডালের ভোগ। নতুন কলাই-এর ভোগ দেওয়া হয় প্রতিমাকে। সঙ্গে মুগ ডালের ভোগ, পোলাও ভোগ, পাঁচ রকম ভাজা, তরকারি, চাটনি, পায়েস, সঙ্গে মিষ্টির আয়োজন। বন্দুকের আওয়াজে শুরু হয় সন্ধিপুজো। সপ্তমী থেকে নবমী পর্যন্ত  নাটমন্দিরে জ্বলে হোমকুন্ড। দেবী দুর্গা এখানে ঘরের মেয়ে। দশমীর বিদায়ের দিনা মেয়ের জন্য থাকে এক বিশেষ আয়োজন। পান্তাভাত, কচুশাক, কলাইয়ের বড়া সহ অন্যান্য ভোগ। পাশাপাশি মহাদেবের জন্য কলকে সাজিয়ে তোলা হয় তামাক। এই পুজোর বয়স নেই নেই করে প্রায় চারশো বছর হল। এমনই জানালেন রায় চৌধুরী বাড়ির বর্তমান প্রজন্ম। সঙ্গে অবশ্যই থাকে বাংলাদেশের স্মৃতি। জমিদারবাড়ির জাঁকজমক, আড়ম্বর সবই আজ প্রায় স্মৃতি। তবু পুজোর কদিন সাবেক বনেদিয়ানা এবং ঐতিহ্যকে ফিরিয়ে আনতে বছরভর চেষ্টা চালিয়ে যান রায়চৌধুরী বাড়ির বর্তমান প্রজন্মের সদস্যরা।

Loading...